প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বাঁশখালীর সরলিয়া বাজারে চলছে দখল বেদল, খাল সংস্কারে নানা অনিয়ম

কল্যাণ বড়ুয়া, বাঁশখালী প্রতনিধি : [২] চট্টগ্রামের বাঁশখালীর পুঁইছড়ির বহাদ্দারহাট মসজিদ থেকে শুরু করে জলকদর খালের পুইঁছড়ি ছনুয়ার দু’পাশের খাল খননে নানা অনিয়ম ও অসঙ্গতির অভিযোগ তুলেছে স্থানীয় জনগন। পানি উন্নয়ন বোর্ডর আওতাধীন পোল্ডার ৬৪/২এ আওতায় ‘পুঁইছড়ি পার্ট পুর্নবাসন ও নিষ্কাশন প্রকল্পটি ১১ কোটি টাকা ব্যয়ে ইউনুছ এন্ড ব্রাদার্স ও গরীবে নেওয়াজ ও ট্রাম ইন্টারন্যাশানাল নামে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠিন কাজটি বাস্তবায়ন করছে।

[৩] কাজের শুর থেকে খালের দু’পাশে গড়ে উঠা স্থাপনার লোকজনের নানা বাধা বিপত্তির মাঝে ও শুরু হওয়া এ খাল খননে কতিপয় লোক টাকার বিনিময়ে সুনিদিষ্ট নিয়মের বাইরে আকাঁ বাঁকা করে নিজেদের দখলে থাকা অবৈধ স্থাপনা রক্ষার চেষ্টা করে সাধারণ জনগণ। তবে তাতে করে সাধারণ জনগণের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

[৪] এ নিয়ে স্থানীয় জনগণ অভিযোগ করলে পানি উন্নয়ন বোর্ড চট্টগ্রামের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী প্রকাশন চাকমা ও উপ-সহকারি প্রকৌশলী ধীমান চৌধুরী ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সিডিউল মেনে ঠিকাদারকে কাজ চালানোর নির্দেশ প্রদান করলে ও কিছু কিছু স্থাপনায় চলছে নানা গড়িমসি।

[৫] পুঁইছড়ি ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আবুল কাসেম বলেন, ঠিকমত সিড়িউলে কাজ না করায় সোলোমান চৌধুরী বাজার প্রকাশ সরলিয়া বাজারের পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় খোলা বাজারে এখন কোন বেচাবিক্রি করতে পারছে না জনগণ। তার উপর পানি জমে যাওয়ায় দুগর্ন্ধ সৃষ্টি হওয়াতে বাজারের মসজিদে নামাজ ও পড়া যাচ্ছে না। অথচ আগে পানি চলাচলের কালভার্ট থাকলেও সেটা বর্তমানে বন্ধ করে দিয়েছে তারা।

[৬] ঠিকাদারের কাজে দায়িত্বে থাকা ম্যানেজার মো. সেলিম বলেন, তাদের অবৈধ স্থাপনা ভেঙ্গে ফেলতে বলায় মিথ্যা অভিযোগ তুলছে। এ ধরনের কোনো ঘটনা এখানে হচ্ছে না।

[৭] সোলেমান চৌধুরীর নাতি আবুল মনসুর চৌধুরী বলেন, অনেক বছর আগে আর এস ৩৬৪ দাগে আমার দাদা এ বাজার প্রতিষ্টা করেছিলেন জনগণের সুবিধার্থে। আমরাও চাই জনগণের সুবিধা। তবে কেউ অন্যায়ভাবে দখল বেদখল করে সর্বসাধারনের জন্য খারাপ হয় এমন কাজ করা ঠিক হবে না। তিনি সরকারি রাজস্ব যাতে যথানিয়মে পাওয়া যায় সে জন্য বাজারটি সংস্কার হয় এটার জন্য আহ্বান জানান ।

[৮] পাউবো চট্টগ্রামের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী প্রকাশন চাকমা বলেন, বেড়িবাঁধ নির্মাণে কোন অনিয়ম হলে ঠিকাদারী প্রতিষ্টিানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর যে সব অভিযোগ উঠছে সেগুলো ইতোমধ্যেই সমাধাণ করে অবৈধ স্থাপনা ভেঙ্গে ফেলার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সম্পাদনা : হ্যাপি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত