প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]শচীন যা পেরেছিলেন কোহলি তা কখনই পারবেন না

ধারাবাহিক প্রতিবেদনের শেষ পর্ব
রাহুল রাজ : [২] শচীন না কোহলি কে সেরা এই প্রশ্ন যারা করে তারা পরিসংখ্যান না ঘেটেই তর্কে জড়িয়ে পড়েন। ব্যাটসম্যান শচীন যেমন দলকে জিতিয়েছেন তেমনি বোলার টেন্ডুলকারও ম্যাচ জয়ে রেখেছেন অনেক অবদান।

[৩] লিটেল মাস্টারের নামের পাশে আছে আন্তর্জাতিক ২০১ উইকেট। যা কখনই কোহলি অর্জন করতে পারবে না। ব্যাটিং নিয়ে এক পক্ষ বলবে কোহলি গড়ে শচীনের চেয়ে এগিয়ে। ২০১৯ এর অস্ট্রেলিয়া সফরে একবারও কোহলি ম্যাচ সেরা হয়নি। অজিদের বিপক্ষে কোহলির গড় ছিল ৩৫ আর নিউজিল্যান্ড সফরে তার গড় ছিল ১২।

[৪] কিন্তু দেশের মাটিতে শ্রীলঙ্কা, উইন্ডিজের বিপক্ষে কোহলির গড় ১০০ এর উপরে। তার ৬০ গড়ের রহস্য এখানেই। শচীন দেশে বিদেশে সব খানেই রান করেছেন কিন্তু কোহলি ঘরেই শুধু রান তুলতে পারে। বিদেশের মাটিতে তার ব্যাট খুব বেশি হাসেনি। বিদেশে টেন্ডুলকারের গড় ছিল ৫৪।

[৫] দেশের বাহিরে রান ও সেঞ্চুরি দুটোতেই এগিয়ে লিটেল মাস্টার। পরের দেশে ২৬ সেঞ্চুরি আছে শচীনের নামের পাশে। অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের মাটিতে ডাবল সেঞ্চুরি আছে ক্রিকেট ঈশ্বরের।

[৬] সাদা পোশাকে কোহলি আর শচীনের গড় প্রায় একই। তবুও এগিয়ে শচীন। লিটেল মাস্টারের ১৪০ টেস্ট পর্যন্ত ৫৭ গড় ছিল, অন্যদিকে ২০০ টেস্ট খেলার পরেও কোহলির গড় ৫৪। ৪র্থ ইনিংসে শচীন ৩ বার সেঞ্চুরি তুলে নিতে পারলেও কোহলি এখনো একবার ও এখানে সেঞ্চুরি করতে পারেনি।

[৭] রেকর্ড তৈরি হয় ভাঙ্গার জন্য। শচীনের রেকর্ড হয়ত এক সময় নতুন কৃত্বিতে ঢাকা পড়বে। হার্সা ভোগলে এক স্বাক্ষাতকারে লিটেল মাস্টারের কাছে জানতে চেয়েছিল, তার রেকর্ড কে ভাঙ্গতে পারবে? উত্তরে শচীন রহিত এবং কোহলি নাম নিয়েছিলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত