প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বাসভাড়া বাড়ানোর বিরোধিতা করলেন অধ্যাপক নজরুল ইসলাম ও ড. আবদুল মজিদ

ভূঁইয়া আশিক রহমান : [২] নগর পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক নজরুল ইসলাম বলেন, বাসভাড়া বৃদ্ধি যাত্রীদের উপর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা। মানুষের আর্থিক ব্যয় ও স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়বে। যতোই বলা হোক, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য অর্ধেক যাত্রী পরিবহন করা হবে, কিন্তু কতোটুকু তা নিশ্চিত হবে দেখার বিষয়। [৪] ভাড়া বৃদ্ধি অধিকাংশ যাত্রীর জন্যই কষ্টসাধ্য হবে। কারণ বাস ব্যবহারকারীদের বেশির ভাগই নিম্ন, নিম্নমধ্যবিত্ত শ্রেণির।

[৩] এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ আবদুল মজিদ বলেন, অতীতে যে লাভ করেছেন পরিবহন মালিকেরা, তা দিয়েই তাদের চলা উচিত। [৪] বিশে^ তেলের দাম কমছে, কিন্তু আমাদের এখানেও কমানো উচিত। এতে মালিকেরা পরিবহন খরচ কমাতে পারেন [৫] করোনাকালের ইকোনোমি রিকোভারির প্রধান শর্ত হচ্ছে মানুষ। সেই মানুষ এখন অর্থশূন্য হয়ে পড়ছে। নানাভাবে সঞ্চয় খরচ হচ্ছে। ঠিক সেই সময় বাসভাড়া বৃদ্ধির নামে মানুষকে জিম্মি অমানবিক।

[৬] করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত সবাই হয়েছে, এটা মেনে নিয়েই সকলকে চলতে হবে। [৭] অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের অজুহাতে ভাড়া বাড়ানো অযৌক্তিক। করোনা মোকাবেলায় যে অর্থনৈতিক সাপোর্ট মানুষকে দেওয়ার কথা সরকারের, ভাড়া বৃদ্ধি সেই চেতনার পরিপন্থী।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত