প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভারত ও চীনের যুদ্ধ যুদ্ধ খেলা

সুব্রত বিশ^াস

করোনা সঙ্কটে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ‘তিরবিদ্ধ’ হয়ে রয়েছে চীন, উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে ভারত ও চীনের মধ্যে থাকা প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায়। আদ্যোপান্ত ব্যবসা-মনস্ক চিনের রুটি-রুজির প্রয়োজনে। পাকিস্তান, নেপাল-সহ দক্ষিণ এশিয়ার বহু দেশের সঙ্গে উন্নততর বাণিজ্যিক সম্পর্কের প্রয়োজনে নির্মীয়মাণ চিন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডর (সিপিইসি)-কে সুরক্ষিত ও পড়শীর নজরদারির ‘বাইরে’ রাখার জন্য কি এই যুদ্ধ যুদ্ধ খেলাটা, চীনেও তো একটা জাতীয়তাবাদী শক্তি বা শক্তিগোষ্ঠীকে সামলাতে হয় শাসক দল চীনা কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিসি) ও প্রেসিডেন্ট শি চিনফিংকে। করোনা সঙ্কটের জেরে চিনের অর্থনীতির ভবিষ্যত নিয়ে যে সংশয় দেখা দিয়েছে আর যেভাবে প্রায় গোটা বিশ্বের আঙুল উঠেছে চীনের দিকে, তাতে সেই জাতীয়তাবাদী শক্তিকে সামলে-সুমলে রাখতে কোনো প্রতিপক্ষ পড়শীর বিরুদ্ধে শক্তির আস্ফালনটা জরুরি হয়ে পড়েছে চীনা প্রেসিডেন্টের।
এই যুদ্ধ যুদ্ধ খেলাটা এখন চীনের চেয়েও বেশি প্রয়োজন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও কেন্দ্রে শাসক দল বিজেপির। কারণ দ্রুত করোনা সংক্রমণ, তা রুখতে আপাতত দুই মাসেরও বেশি ধরে চলা লকডাউনের জেরে ভারতে যেভাবে বেকারি, ছাঁটাইয়ের সংখ্যাবৃদ্ধি ঘটে চলেছে, যে ভয়াবহ ঋণাত্মক আর্থিক বৃদ্ধির অশনি সংকেত মিলেছে ইতোমধ্যেই, কাঁধ থেকে তার বোঝাটা হালকা করার জন্যই আবার একটা দেশপ্রেমের জোয়ারের প্রয়োজন প্রধানমন্ত্রী মোদীর। আর সেটা আরও জোরালো হয় পাকিস্তান বা চীনের সঙ্গে যুদ্ধের আশঙ্কা থাকলে বা তা বাড়িয়ে দেখানো সম্ভব হলে।’ আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞদের একাংশের ধারণা, নিজেদের স্বার্থেই এই পর্যায়ের ‘যুদ্ধ যুদ্ধ খেলা’টা কিছু দিন চালিয়ে যেতে চাইবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী ও চীনের প্রেসিডেন্ট। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত