প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কারাতের গুরু জুয়েল সানকে হারিয়ে শিষ্যদের আবেগঘন স্ট্যাটাস

স্পোর্টস ডেস্ক : [২] মঙ্গলবার রাজধানীর একটি হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন ৫২ বছর বয়সী জুয়েল। বাংলাদেশ জাতীয় কারাতে দলের সাবেক এই তারকা একাধারে ছিলেন কোচ, রেফারি, সংগঠক। সুখে-দুঃখে সবসময় ছায়া হয়ে ছিলেন খেলোয়াড়দের। হঠাৎ তার এই চলে যাওয়া তাই মেনে নিতে পারছেন না শিষ্যরা।

[৩] গত ডিসেম্বরে নেপাল অনুষ্ঠিত এসএ গেমসে স্বর্ণজয়ী কারাতেকা হোমায়রা আক্তার অন্তরার কণ্ঠে যেমন অভিভাবক হারানোর আর্তনাদ। মঙ্গলবার কোচকে শেষবারের মতো দেখতে ছুটে গিয়েছিলেন তার ঢাকার বাসায়।

[৪] সেখান থেকে ফিরে বলছিলেন, সেনসি আমাকে সব খেলায় সুযোগ করে দিতেন। তার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় খেলে রেজাল্ট করেছি। জাতীয়, আন্তর্জাতিক সব খেলায় তিনি আমাকে খেলার জন্য নির্বাচন করে রাখতেন। আমার যে কোনো সমস্যায় তিনি এক অদৃশ্য শক্তির মতো হাজির হতেন, সমাধান দিতেন। কারাতেতে এত অবদান রেখে গেলেও কখনো বিনিময়ে কিছু চাননি। – দেশরূপান্তর

[৫] ২০১০ এসএ গেমসে স্বর্ণজয়ী কারাতেকা হাসান খান সান ফেইসবুকে আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

[৬] তিনি লিখেন, কারাতে গত ১০ বছরে বাংলাদেশের যে শীর্ষ ক্রীড়া ইভেন্টে উপনীত হয়েছে এবং বাংলাদেশ কারাতে সাউথ এশিয়ার অন্যতম শক্তিতে পরিণত হয়েছে, তার পেছনে যে সীমিত কয়েকজন ব্যক্তি পথপ্রদর্শক ও নেতৃত্ব দান করেছেন, তার মধ্য তিনি অন্যতম শীর্ষ ব্যক্তিত্ব। কারাতে শুধু একটি উজ্জ্বল নক্ষত্র হারায়নি, হারিয়েছে একজন অদ্বিতীয় প্রতিভাকে। যে ক্ষত পূরণ করার ক্ষমতা বর্তমানে আমাদের নেই।

[৭] সানের পোস্টেও অভিভাবক হারানোর শোক, ‘যে কয়েকজন ব্যক্তির মধ্য আমি আমার মরহুম বাবার প্রতিচ্ছবি খুঁজে পেতাম, জুয়েল সেনসি তেমনি একজন। অনুগ্রহ করে সবাই ওনার জন্য দোয়া করবেন, যেন আল্লাহ তাকে জান্নাতুল ফেরদাউস নসিব করেন। আমিন।

[৮] কারাতেকা মাউনজেরা বর্ণা ফেইসকুকে লিখেছেন, ‘বাংলাদেশের কারাতে অঙ্গনের সেনসি হুমায়ুন কবির জুয়েল আমাদের মাঝে আর নেইৃ আমরা তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। বাংলাদেশ কারাতের রেফেরিং এর মান উন্নয়ন তথা বাংলাদেশ কারাতের সার্বিক উন্নয়নে তার অবদান স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। তিনি অসংখ্যবার আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বাংলাদেশকে সম্মানের সহিত উপস্থাপন করেছিলেন। আমরা সবাই ওনার জন্য দোয়া করি, আল্লাহ যেন তাকে জান্নাত নসিব করুন। আমিন।

[৯] শ্বাসকষ্টের সমস্যা সোমবার হুমায়ুন কবির জুয়েলকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর আর বাসায় ফেরা হয়নি। জানা গেছে, তার দুইবার করোনা পরীক্ষা করা হলেও ফল নেগেটিভ ছিল।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত