প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সুপার সাইক্লোনে পশ্চিমবঙ্গ ও উড়িষ্যা সবচেয়ে বেশি ক্ষতির শিকার হবে বলে আশঙ্কা

সালেহ্ বিপ্লব : [২] এরই মধ্যে সরিয়ে নেয়া হয়েছে ৩ লাখ মানুষকে। তাদের মধ্যে ২ লাখ মানুষ দক্ষিণ ২৪ পরগনার। বাকিদের মধ্যে উত্তর ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর ও পশ্চিম মেদিনীপুরের যথাক্রমে ৫০ হাজার, ৪০ হাজার ও ১০ হাজার। আরো ৮ লাখ মানুষকে সরিয়ে নেয়ার কার্যক্রম চলছে। সবাইকে বুধবার সকাল থেকে দুর্যোগ কেটে যাওয়া পর্যন্ত বাড়িতেই থাকতে বলা হয়েছে। এনডিটিভি, ওয়ানইন্ডিয়া, আনন্দবাজার

[৩] পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, হাওড়া ও হুগলিতে ন্যাশনাল ডিজেস্টার রেসপন্স ফোর্সের (এনডিআরএফ) সাতটি দল পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে, উড়িষ্যার পুরি, জগৎশিংপুর, কেন্দ্রপাড়া, বালাসোর, জয়পুর, ভদ্রক ও ময়ূরভঞ্জে ১০টি দলকে পাঠানো হয়েছে।

[৪] সারারাত নিজের অফিস নবান্নতেই কাটিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানেই খোলা হয়েছে কন্ট্রোল রুম। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ফোনে কথা বলেছেন মমতা ও উড়িষ্যার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েকের সঙ্গে। সাইক্লোনে সৃষ্ট পরিস্থিতি মোকাবিলায় কেন্দ্র সর্বাত্মক সহযোগিতা দেবে বলে জানিয়েছেন।

[৫] কলকাতা পৌরসভায় নেয়া হয়েছে যুদ্ধকালীন প্রস্তুতি। মেয়র ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, প্রবল বৃষ্টি হলেও যাতে কলকাতা জলমগ্ন না হয়ে পড়ে তার জন্য সব পাম্পিং স্টেশনগুলিকে সচল রাখতে বলা হয়েছে।

[৬] ভারতের আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, গত দুই দশকে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট এই দ্বিতীয় সুপার সাইক্লোন ১৮০ কিলোমিটার বেগে পশ্চিমবঙ্গে আঘাত করবে। এতে বড়ো আকারের ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।

[৭] পূর্বাভাসে আরো বলা হয়, আমফানে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হতে পারে কলকাতা, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, হুগলি এবং নদিয়া জেলার। উড়িষ্যায় এই ঝড় মূলত জগৎসিংহপুর, কেন্দ্রপাড়া, ভদ্রক, বালাসোর, জাজপুর, ময়ূরভঞ্জ এলাকার উপর দিয়ে বয়ে যাবে।

সর্বাধিক পঠিত