প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনা মোকাবেলায় সমন্বয়হীনতার ছাপ সুস্পষ্ট

আবুল বাশার নুরু : [২] বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণ শুরুর সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে সমালোচনা শুরু হয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের। অভিযোগ ওঠে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আগে থেকে প্রস্তুতি গ্রহণ করেনি, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সমন্বয়হীনতা আছে। এমনকি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নিয়ে নানা রকম ব্যর্থতার কথা গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন মহলে আলোচিত বিষয়। এমনকি সরকারের নীতিনির্ধারক মহলেও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রস্তুতি সমন্বয় এবং বিভিন্ন রকম কেনাকাটায় স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। শুরু থেকেই বলা হচ্ছিল যে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে সমন্বয়হীনতা রয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী স্বাস্থ্য সচিব এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের মধ্যে সে সুসম্পর্ক নেই বলে কোনো কোনো মহল থেকে বলা হয়েছে। বলা হচ্ছে যে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যেন একটা অসুখী সংসার। বিভিন্ন জায়গায় কান পাতলেই শোনা যাচ্ছিল যে, স্বাস্থ্যমন্ত্রী যেমন মহাপরিচালকের ব্যাপারে অসন্তোষ প্রকাশ করছেন, আবার স্বাস্থ্য সচিবও সমন্বয়সাধন না করার দুঃখে হতাশা প্রকাশ করছেন। এই সমস্ত ব্যর্থতা সমন্বয়হীনতা এবং পূর্ব প্রস্তুতি নিয়ে কাজ করার অভাবের কারণে সরকারের নীতি নির্ধারণী মহলে আলোচনা হচ্ছিল যে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এই টিমকে পরিবর্তন করা হবে কিনা। তবে সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে যে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এই টিমেই আস্থা রেখেছেন সরকারের নীতি নির্ধারকরা।

[৩]সম্প্রতি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের গণভবনে ডেকেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি তাদেরকে আশ্বস্ত করেছেন এবং বলেছেন যে, প্ন্যের সমালোচনায় না ঘাবড়ানোর জন্য। তিনি এটাও বলেছেন যে, তারা যে কাজ করছেন ঠিকই করছেন। এর ফলে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে পরিবর্তনের যে গুঞ্জন উঠেছিল, তা আপাতত বন্ধ হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

৪] উল্লেখ্য যে, প্রধানমন্ত্রী কখনও দুঃসময় বা সংকটময় সময়ে কাউকে পরিবর্তন করেন না। এটা আগে থেকেই জানা। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে যে ব্যর্থতা এবং অযোগ্যতার অভিযোগগুলো এসেছে, সেগুলোর ব্যাপারে তিনি পরবর্তীতে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য রেখেছেন।

[৫] সরকারের নীতি নির্ধারণী মহল মনে করছে যে, এখন যদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে কোনো পরিবর্তন করা হয়, তাহলে বিরোধী দলগুল যে সমালোচনা করছে এবং সরকারের ব্যর্থতার ব্যাপারে যে অভিযোগগুলো উঠছে, সেগুলো হালে পানি পাবে। সেই সুযোগ বিরোধী দল বা অন্য কাউকে দিতে চায় না সরকার। এ কারণেই বর্তমান টিম নিয়েই সরকার কাজ করতে চায়। সরকার মনে করছে, আগে যে পরিকল্পনা এবং সমন্বয়হীনতা ছিল প্রধানমন্ত্রীর তদারকির ফলে তা কেটে যাবে। প্রধানমন্ত্রী যেহেতু সব বিষয়গুলো দেখভাল করছেন, কাজেই এখন সমন্বয়ের অভাব এবং ব্যর্থতা থাকবে না। সূত্র : বাংলা ইনসাইডার

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত