প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] জুন মাসের শেষ পর্যন্ত বিমানের খরচ দাঁড়াবে ১৪০৭ কোটি টাকা

লাইজুল ইসলাম : [২] লিজ ও কিস্তি তিন মাসে দিতে হবে ৪৭৭ কোটি টাকা

[৩] ক্ষতির পরিমান হিসেবের বাইরে, বিমান এমডি মোক্কাবির

[৪] বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও বলেন, চলতি মাসে মন্ত্রণালয়ে আমরা চিঠি দিয়েছি। এই মাসে বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্সের খরচ ৬২৮ কোটি টাকা। বাংলাদেশ বিমানের মালিক সরকার। তাই খরচের পরিমান আমরা তাদের জানিয়েছি মাত্র। কিন্তু চাইনি। আয় না হলে খরচ তো সরকারই বহন করবে। হয় ঋণ দিবে না হয় অন্য ব্যবস্থা করবে।

[৫] বিমান বহরে বর্তমানে মোট উড়োজাহাজ রয়েছে ১৮টি। এর মধ্যে ২৯৮ আসনের দুটি বোয়িং ৭৮৭-৯ মডেলের ড্রিমলাইনার, ২৭১ আসনের চারটি বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার, ৪১৯ আসনের চারটি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর এবং দুটি ১৬২ আসনের দুটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ মিলিয়ে বিমানের নিজস্ব অর্থে কেনা উড়োজাহাজ রয়েছে মোট ১২টি। বাকি ছয়টি উড়োজাহাজের মধ্যে চারটি ৭৩৭-৮০০ ও ৭৪ আসনের দুটি ড্যাশ-৮ লিজে আনা হয়েছে। জুনের মধ্যে কানাডা থেকে আরো নতুন তিনটি ড্যাশ-৮ বহরে যুক্ত হওয়ার কথা রয়েছে।

[৬] মোকাব্বির হোসেন বলেন, আকাশে না উড়ে ডানা গোটানো থাকলেও অত্যাধুনিক উড়োজাহাজগুলোকে রক্ষণাবেক্ষণ করতে হবে। এর মধ্যে ১২টি উড়োজাহাজ বিমানের সম্পদ। এগুলো টিকিয়ে রাখতে হবে। লিজে আনা বাকি উড়োজাহাজগুলোসহ ১৮টি উড়োজাহাজের রক্ষণাবেক্ষণ ব্যয়ে এপ্রিল মাসে লাগবে ২৬৬ কোটি টাকা। জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত আয় কমেছে। মার্চ মাসে টিকিট বিক্রি হয়নি। কিন্তু বিমানের খরচ যেসব খাতে রয়েছে, সেগুলো কিন্তু রয়ে গেছে।

[৭] সিইও বলেন, বিমানের বিশাল কর্মী বহরের বেতন ও বিভিন্ন দেশে অফিস রক্ষণাবেক্ষণ খরচ মাসে ২০৩ কোটি টাকা। লিজ আনা উড়োজাহাজের জন্য এপ্রিলে প্রয়োজন ৯৮ কোটি টাকা। উড়োজাহাজের কিস্তির জন্য ৬১ কোটি টাকা।

[৮] এমডি বলেন, এসব কিছুর জন্য এপ্রিল মাস থেকে জুন মাস পর্যন্ত খরচ ৬২৮ কোটি টাকা। বিমান বন্ধ থাকলে এসব অর্থ কোনো না কোনো ভাবে ব্যবস্থা করতে হবে। এ ছাড়া এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে বিক্রি হওয়া টিকিট ফেরত নিয়ে যাত্রীদের দিতে হবে ১৪ কোটি টাকা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত