প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মেহেরপুরে লাঠি হাতে রাজপথে পৌর মেয়র !

মেহেরপুর প্রতিনিধি : [২] বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) রাত সাড়ে ৮টার দিকে মেহেরপুরের গাংনী বাস স্ট্যান্ড এলাকায় দেখা গেল অন্য দিনের চেয়ে ভিন্ন চিত্র। লাঠি হাতে রাস্তার বিভিন্ন স্থানে দাঁড়িয়ে কিছু মানুষ। প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধের চেষ্টার অংশ হিসেবে জনসমাগম ঠেকাতে লাঠি হাতে মাঠে নেমেছেন বলে জানান মেয়র।

[৩] এছাড়া জরুরি কাজে ঘর থেকে বের হওয়া মানুষের মুখে মাস্ক পরিয়ে দিয়ে সচেতন করা হচ্ছে। আর বিনা কারণে যারা বের হয়েছেন, তাদের বুঝিয়ে ঘরে ফেরত পাঠাচ্ছেন তারা। লাঠি হাতে এ কাজের তদারকি করছেন গাংনী পৌর মেয়র আশরাফুল ইসলাম।

[৪] পৌর মেয়র আশরাফুল ইসলাম বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জেলা, উপজেলা, পৌর ও ইউনিয়ন পর্যায়ে করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে জনগণকে সচেতন করতে কমিটি গঠন করেছে। আমি পৌর কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি।

[৫] মানুষের চলাচল ঠেকাতে গিয়ে নিজেরা করোনা ঝুঁকির মধ্যে পড়ছেন কি না জানতে চাইলে মেয়র আশরাফুল ইসলাম বলেন, গাংনীর মানুষকে করোনা ঝুঁকি থেকে রক্ষা করতে আমরা কিছুটা ঝুঁকি নিয়েই কাজ করছি। এখানে যারা দায়িত্ব পালন করছেন, তাদের মাঝে মধ্যে হাত ধোয়ানো হচ্ছে। ব্যবহার করা হচ্ছে মাস্ক ও গ্লাসভ। এছাড়াও আমাদের কর্মীদের দ্রুত ব্যক্তিগত নিরাপত্তা সরঞ্জাম (পিপিই) দেওয়া হবে।

[৬] গ্রাম পর্যায়ে মানুষ সামলাতে গিয়ে পুলিশ ও প্রশাসনের বেশি সময় দিতে হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় বুধবার সন্ধ্যা থেকে যানবাহন চলাচল ও দোকানপাট বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে রাস্তায় বিনা কারণে চলাচলকারী মানুষের সংখ্যা বেড়ে গিয়েছিল। বাজারেও ছিল ভিড়। তাই পৌরসভার সব কর্মীকে নিয়ে আমরা মাঠে নামি।

[৭] পাঁচ হাজার মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, অনেকে এখনো অসচেতন। পথচারীদের যারা মাস্ক ছাড়া চলাচল করছেন বা যাদের কেনার সাধ্য নেই, তাদের মধ্যে মাস্ক বিতরণ করা হচ্ছে। অপরদিকে বাসস্ট্যান্ডের দু’টি স্থানে বেসিন স্থাপন করে হ্যান্ড সেনিটাইজার দেওয়া হয়েছে। বাজারে কেউ এলে তাকে হাত ধোয়ার অনুরোধ করা হচ্ছে।

[৮] এ বিষয়ে গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবাইদুর রহমান বলেন, মেয়র তার কর্মীদের নিয়ে যে কাজটি করছেন, তা আমাদের জন্য অনেক সহায়ক হচ্ছে। সম্পাদনা:জেরিন আহমেদ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত