প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নদীর পাঁড়ে ময়লার ভাগাড়, দূষিত হচ্ছে পরিবেশ

তৌহিদুর রহমান , ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: [২] ব্রাহ্মনবাড়িয়ার নবীনগর পৌর এলাকার বাসা-বাড়ি ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বর্জ্যে দূষিত হচ্ছে তিতাস ও বুড়ি নদী। ময়লার তীব্র দূর্গন্ধ এসব এলাকার পরিবেশসহ নদীর পানির দূষিত হচ্ছে। আর ময়লা আবর্জনায় আগুন লাগানোর কারনে ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন হচ্ছে নদীর তীর সংলগ্ন সদর রোডসহ আশেপাশের এলাকা। এতে চরম দূভোর্গ পোহাতে হচ্ছে সাধারণ মানুষদের। সরে জমিনে গিয়ে দেখা গেছে, নবীনগর পৌরসভাস্থ তিতাস ও বুড়ি নদীর তীরের একাধিক স্থানে নবীনগর বাজারের বর্জ্য ও পৌরসভাস্থ বাসা-বাড়ির বর্জ্যে ভরাট হচ্ছে নদীর তীর। বিশেষ করে মাঝিকাড়া ব্রীজ, মনুবাবুর ঘাট, মাঝিকাড়া নৌকাঘাট, বড় মঠের ঘাট, থানা ঘাট, ফলবাজার ঘাট, লঞ্চ ঘাট, স্পীডবোর্ড ঘাট, হাসান শাহ মাজার ঘাটসহ একাধিক স্থানে বর্জ্যরে স্তুপ জমে উঠেছে।

[৩] এক শ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ী নিচ্ছে সুবিধা। ময়লা আর্বজনায় ভরাটকৃত নদীর তীর দখল করে তারা গড়ে তুলছে বিভিন্ন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান।মঠের ঘাট সংলগ্ন ব্যবসায়ী মাইনুউদ্দিন জানান, বাজারের বেশির ভাগ ময়লা আর্বজনা এনে নদীর তীরে ফেলার কারনে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে পয়নিষ্কাশন নালা গুলো, এতে করে ড্রেনের ময়লা পানি ছড়িয়ে পড়ছে। নৌকা দিয়ে যাতায়াত করা যাত্রীদের পোহাতে হচ্ছে চরম দূভোর্গ।

[৪] মাঝিকাড়া ব্রীজ সংলগ্ন ব্যবসায়ী কবির মিয়া জানান, ময়লা আর্বজনার স্তুপের দূর্গন্ধে দোকানে বসে থাকা দায়। তাছাড়া তারা যখন আগুন লাগিয়ে দেয় তখন তো ধোঁয়ায় অন্ধকার হয়ে যায় রাস্তা-ঘাট, দোকান পাট।

[৫] এ বিষয়ে নবীনগর পৌরসভার কতৃপক্ষ জানান, ইতিমধ্যে নবীনগর পৌরসভার ময়লা-আর্বজনার জন্য ডাম্পিং স্টেশন তৈরি করা হচ্ছে। ডাম্পিং স্টেশন তৈরি করা হলে আর্বজনার সমস্যা দ্রুত সমাধান হবে বলে আশা করি।সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত