প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ফরিদপুরে শিলা বৃষ্টিতে পেঁয়াজের ব্যাপক ক্ষতি, কৃষকের মাথায় হাত

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি: [২] দক্ষিণাঞ্চলের শ্রেষ্ঠ পেঁয়াজ উৎপাদনকারী জেলা ফরিদপুর। হঠাৎ শিলা বৃষ্টিতে পেঁয়াজের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে ফরিদপুরে। মাত্র ১৫ মিনিটের শিলা বৃষ্টিতে কৃষকের স্বপ্ন ভেঙ্গে চুরমার হয়ে গেছে। বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন ভাঙ্গা, নগরকান্দা ও সালথা উপজেলা পেঁয়াজের ক্ষেত।

[৩] মঙ্গলবার (৩ মার্চ) সকালে শিলা বৃষ্টিতে ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার ভাঙ্গা পৌরসভা, হামিরদী ও ঘারুয়া ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের মাঠের শতাধিক বিঘা পেঁয়াজের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

[৪] বগাইল গ্রামের পেঁয়াজ চাষী শেখ শামীম জানান, আর ১৫-২০ দিন পর এ পেঁয়াজ ঘরে উঠানোর কথা। তার আগেই শিলা বৃষ্টিতে আমাদের পেঁয়াজের ব্যাপক ক্ষতি হয়ে গেল। ভাঙ্গা পৌরসভার ভাড়ইডাঙ্গা মহল্লার পেঁয়াজ চাষী ইসাহাক মোল্লা জানান, শিলা বৃষ্টির কারণে তার পেঁয়াজের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

[৫] ঘারুয়া ইউপি চেয়ারম্যান সফিউদ্দিন মোল্লা জানান, ঘারুয়া ইউনিয়নে ব্যাপক পেঁয়াজ চাষ হয়। শিলা বৃষ্টিতে বামনকান্দা গ্রামের পেঁয়াজ চাষীদের ক্ষতি হয়েছে।

[৬] ভাঙ্গা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সুদর্শন শিকদার বলেন, শিলা বৃষ্টিতে ভাঙ্গার কয়েকটি গ্রামের কৃষকের পেঁয়াজের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তবে আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ক্ষতির মাত্রা কমে আশার সম্ভাবনা রয়েছে।

[৭] এদিকে, নগরকান্দা উপজেলায় হঠাৎ শিলা বৃষ্টিতে পেঁয়াজ, গম, মশুরী, সরিষা সহ অন্যান্য ফসলের ব্যপক ক্ষতি হয়েছে। গত বছর পেঁয়াজ চাষীরা পেঁয়াজের মূল্য কম পাওয়ায় এবার তা পুষিয়ে উঠতে পেঁয়াজের আবাদ শুরু করেছিল। এবার পেঁয়াজের বাম্পার ফলন হলেও আর মাত্র ১২/১৫ দিন পর পেঁয়াজ ঘরে তোলার স্বপ্ন দেখছিলো চাষীরা।

[৮] সরেজমিনে পেঁয়াজের কয়েকটি মাঠ ঘুরে দেখাগেছে, শিলাবৃষ্টির আঘাতে পেঁয়াজ গাছ চুর্ণবিচুর্ণ হয়ে মাটির সাথে মিশে আছে। এ ছাড়াও রবি শষ্যের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। শিলা বৃষ্টিতে কয়েক হাজার হেক্টর জমির ফসল বিনষ্ঠ হয়েছে বলে দাবি করেছে উপজেলার একাধিক কৃষক। শিলার আঘাতে চুর্ণবিচুর্ণ হয়েছে পেঁয়াজের গাছ। ক্ষতি নিরুপনে মাঠে নেমেছে উপজেলা কৃষি অফিস । উপজেলার লস্করদিয়া ইউনিয়নের জুঙ্গুরদী গ্রামের কৃষক আলমগীর মোল্যা বিলাপ করে বলেন, শিলা বৃষ্টিতে তার সাড়ে তিন বিঘা জমির পেঁয়াজ সম্পূর্ণ বিধ্বস্থ হয়েছে। এতে তার প্রায় চার লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

[৯] শহীদনগর ইউনিয়নের আরেক কৃষক ওবায়দুর জানান, তার দানার পেঁয়াজ ও চারার পেঁয়াজের আবাদ সম্পর্ন বিনষ্ট হয়েছে। নগরকান্দা পৌরসভার কৃষক নজির মাতুব্বর বলেন, আমার তিন বিঘা জমির গম, মুশুরী, কলাই সম্পূর্ন রুপে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এছাড়া উপজেলার প্রায় অধিকাংশ এলাকার আমের মুকুল ঝরে পড়েছে, গমের গাছ হেলে পড়েছে। উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের অনেকের বাড়ির টিন শিলার আঘাতে বিনষ্ট হয়েছে।

[১০] উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা, কৃষিবিদ মোহাম্মদ বিন ইয়ামিন বলেন, হঠাৎ শিলা বৃষ্টিতে রবি শষ্যসহ উপজেলায় প্রায় ১৫০ হেক্টর জমির পেঁয়াজ আবাদের ক্ষতি হয়েছে। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত