প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মিয়ানমার থেকে একদিনে ১৮০০মেট্রিকটন পেঁয়াজ আমদানি

ফরহাদ আমিন,টেকনাফ(কক্সবাজার) : [২] মিয়ানমার থেকে মঙ্গলবার একদিনে স্থানীয় ১১জন ব্যবসায়ীর কাছে ২৫টি ট্রলারে করে ১হাজার ৮০০দশমিক ৪৫২টন পেঁয়াজ টেকনাফ স্থলবন্দরে এসেছে।

[৩] চলতি ফেব্রুয়ারী মাসে২২দফায় মিয়ানমার থেকে নৌপথে ২৬হাজার২১০দশমিক ৬৫৪টন পেঁয়াজ আমদানি করা হয়েছে।তবে অন্যান্য বছরের তুলনায় চলতি অর্থবছরে (২০১৯-২০)পেঁয়াজের আমদানি অনেক বেশি।এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ স্থলবন্দরের কাস্টমস সুপার আফসার উদ্দিন।

[৪] তিনি বলেন,গত বছরের ২৯সেপ্টেম্বর থেকে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয় ভারত।এরপর ৩০সেপ্টেম্বর মিয়ানমার থেকে প্রথম চালানে ৬৫০টন পেঁয়াজ আসে।এরপর থেকে মঙ্গলবার বিকেল পর্যন্ত মিয়ানমার থেকে ১লাখ ২হাজার৬৮৪দশমিক ২৮৯টন পেঁয়াজ আমদানি করা হয়েছে।বর্তমানে মিয়ানমারের প্রতিটন পেঁয়াজের শুল্কায়ন ৭০০ ডলার।সকালে স্থানীয় ব্যবসায়ীহাশেমের ৩৫৬দশমিক ৪২৫;যদুবাবুর ২১৩দশমিক ৮৫৫;সেলিমের ১২৮দশমিক ৩১৬; কামরুলের ৮দশমিক ১৯০;নাসিরের ৭০দশমিক৫২১; সজিবের ২১৩দশমিক ৮৫৫; বাহদুরের ১৪২দশমিক ৫৭০;শুক্কুরের ৭৯দশমিক ৮১৫; মুহসিনের ৭১দশমিক ২৫৫;শওকতের ২৮৭দশমিক৫৭২; জব্বারের২২৮দশমিক৪৮টন পেঁয়াজ স্থলবন্দরে আসে।তিনি আরও বলেন,মিয়ানমার থেকে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের পেঁয়াজ আমদানির পাশাপাশি অন্যান্য পণ্য বাড়াতে ব্যবসায়ীদের উৎসাহিত করা হচ্ছে।

[৪] এ প্রসঙ্গে স্থলবন্দর পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠানের ইউনাইটেড ল্যান্ড পোর্ট টেকনাফ লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক (অপারেশন)জসিম উদ্দিন বলেন,আমদানি করা পেঁয়াজ দ্রুত সময়ে খালাস করা হচ্ছে।মঙ্গলবার রাত ৮টা পর্যন্ত ১৩৮টি পেঁয়াজ ভর্তি ট্রাক দেশের বিভিন্ন বিভাগীয় শহরের উদ্দেশ্যে স্থলবন্দর ছেড়ে গেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত