প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রতিটি নির্বাচন মার্কিন-ইসরাইলি চক্রান্ত নস্যাৎ করতে ভূমিকা রাখছে: ইরানের সর্বোচ্চ নেতা

রাশিদ রিয়াজ : ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেছেন, ইসলামি রাষ্ট্র ব্যবস্থা ও জনগণের মধ্যে দূরত্ব সৃষ্টির চেষ্টা করছে আমেরিকা। তবে প্রতিটি নির্বাচন ইরানের বিরুদ্ধে মার্কিন-ইসরাইলি চক্রান্ত নস্যাৎ করতে ভূমিকা রাখছে।

মঙ্গলবার তেহরানে ইরানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় পূর্ব আযারবাইজান প্রদেশ থেকে আসা হাজার হাজার মানুষের এক সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। ১৯৭৮ সালের এই দিনে পূর্ব আযারবাইজানের তাবরিজ শহরের মানুষ তৎকালীন স্বৈরশাসক রেজা শাহ পাহলাভির বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেছিল।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, শত্রু-মিত্রুরা এখন ২১ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে আছে। শত্রুদেরকে হতাশ করার একমাত্র উপায় হলো শক্তিশালী হওয়া। দৃঢ় সংসদ হচ্ছে শক্তিশালী ইরানের পরিচায়ক। দৃঢ় সংসদের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এটি প্রয়োজনীয় আইন অনুমোদনের পাশাপাশি কাঙ্ক্ষিত পথে সরকারকে পরিচালিত করতে পারে এবং দেশকে বিপদমুক্ত রাখতে পারে।

লেফটেন্যান্ট জেনারেল কাসেম সোলাইমানি হত্যাকাণ্ড প্রসঙ্গে তিনি বলেন, কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার মাধ্যমে গোটা অঞ্চলে আধিপত্য কায়েম করতে চেয়েছিল আমেরিকা, কিন্তু ফল হয়েছে উল্টো। বাগদাদে মার্কিন বিরোধী বিশাল বিক্ষোভ, আলেপ্পোসহ সিরিয়া পরিস্থিতি ও অন্যান্য আঞ্চলিক ঘটনা শত্রুদের প্রত্যাশার বিপরীতে গেছে।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আরও বলেন, এবারের সংসদ নির্বাচন এমন এক পরিস্থিতিতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে যখন আমেরিকা একের পর এক চাপ বাড়াচ্ছে এবং সরকার ও জনগণের মধ্যে দূরত্ব সৃষ্টির অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ অবস্থায় মার্কিন শয়তানি লক্ষ্য-উদ্দেশ্য ব্যর্থ করতে ভোটারদের উচিৎ ব্যাপক সংখ্যায় নির্বাচনে অংশ নেয়া।

ইরানের ইসলামি বিপ্লবের ৪১তম বার্ষিকীর শোভাযাত্রা এবং জেনারেল কাসেম সোলাইমানির শেষ বিদায় ও জানাযা অনুষ্ঠানে মানুষের ব্যাপক উপস্থিতির প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, জনগণের উচিৎ আসন্ন নির্বাচনে ব্যাপকভাবে অংশ নিয়ে শত্রুদের হতাশ করা। এর ফলে শত্রুরা বুঝতে পারবে তাদের চক্রান্ত সত্ত্বেও মানুষ নির্বাচনে অংশ নিয়েছে এবং মানুষের ব্যাপক উপস্থিতি ইসলামি রাষ্ট্র ব্যবস্থার জন্য গর্বের বিষয়।

আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি ইরানে সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। একইসঙ্গে বিশেষজ্ঞ পরিষদের মধ্যবর্তী নির্বাচনেরও ভোটগ্রহণ করা হবে এদিন। ইরানের বিশেষজ্ঞ পরিষদ সর্বোচ্চ নেতা নির্বাচন ও তাঁর কার্যক্রম পর্যবেক্ষণের দায়িত্ব পালন করে। পারসটুডে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত