প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভাইরাস আতঙ্কে ইউয়ান এবং অন্যান্য রপ্তানি নির্ভর মুদ্রার দরপতন

নূর মাজিদ : উহান করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আতঙ্কে এখন ছড়িয়ে পড়েছে মুদ্রাবাজারেও। এই সংক্রমণের আসন্ন ভয়াবহ পরিণতি এবং এর ফলে চীনা অর্থনীতি গতি ও বিনিয়োগ আস্থা হারাবে এমন ভয়ের শিকার হয়েছে রপ্তানি নির্ভর অন্যান্য দেশের মুদ্রাও। যেসব দেশ চীনে শিল্প কাঁচামাল ও ভোক্তাপন্যের প্রধান রপ্তানিকারক তাদের মুদ্রার দর এখন পড়তির দিকে।

সোমবার মুদ্রাবাজারের লেনদেনে চলতি বছর শুরুর পর সবচেয়ে বড় দরপতনের মুখে পড়েছে চীনা মুদ্রা ইউয়ান। একই প্রবণতায় ভুগছে চীনে কয়লা, আকরিক লৌহ এবং অন্যান্য খনিজ জাতীয় কাঁচামালের বৃহৎ রপ্তানি অংশীদার অস্ট্রেলিয়ার ডলারও। বিনিয়োগকারীরা এসব মুদ্রা থেকে নিবেশ সরিয়ে মার্কিন ডলার এবং স্বর্ণের মতো নিরাপদ উৎসে বিনিয়োগ করার ফলেই এমনটি হয়েছে। খবর : রয়টার্স

এই দরপতনে সবচেয়ে লাভবান হয়েছে জাপানি ইয়েন। সোমবার মুদ্রাবাজারে জাপানি মুদ্রার বিনিময় দর গত ৮ জানুয়ারির পর সর্বোচ্চ দর অর্জন করে। আরবিসি ক্যাপিটালের ফরেক্স কৌশলবিদ এলসা লিগনোস মনে করেন, মুদ্রাবাজারের বর্তমান অবস্থায় আতংক প্রয়োজনের চাইতে বেশি দরপতন ঘটিয়েছে। তবে বাজার অস্থিরতার অন্য দিকটি হলো ভাইরাস সংক্রমণ রোধে নেয়া চীন সরকারের পদক্ষেপ এবং তার ফলে সৃষ্ট ব্যবসা-বানিজ্যের অর্থনৈতিক ক্ষতি। মূলত এসব কারণেই মুদ্রাবাজার আন্দোলিত হচ্ছে,বলে জানান তিনি।

চীনের বাহিরের বাজার লেনদেনে ইউয়ান ডলারের বিপরীতে দশমিক ৮ শতাংশ দর হারায়। ফলে প্রতি ডলারে ৬ দশমিক ৯৯ ইউয়ানের লেনদেন চলে। চলতি মাসের গোঁড়ায় পাঁচ মাসের মাঝে শীর্ষ অবস্থান অর্জনের পর এটি মুদ্রাটির সবচেয়ে আকস্মিক এবং বড় মূল্যস্খলন। নতুন পুঁজিতে উদ্দীপ্ত মার্কিন ডলারের দর সোমবারের লেনদেনে বাড়ে ২ শতাংশ।

চীনা অর্থনীতির অবস্থানের ওপর নির্ভরশীল অস্ট্রেলিয় ডলার একইদিন মার্কিন মুদ্রার বিপরীতে দশমিক ৮ শতাংশ দর হারায়। নিউজিল্যান্ড ডলারের মূল্য কমে আরও দশমিক ৭ শতাংশ।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত