প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অনিয়মের অভিযোগে লক্ষ্মীপুর আ.লীগের ৮ ইউনিয়নে সম্মেলন স্থগিত

জাহাঙ্গীর লিটন, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন স্থগিত করেছেন জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন। তবে সম্মেলন স্থগিত করা হয়নি বলে জানিয়েছেন জেলা সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের রশি টানাটানি নিয়ে তৃণমূল আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও সমর্থকরা বিভ্রান্তিতে রয়েছেন। এ কারণে ৭ নভেম্বর, শনিবার বিকেলে পূর্বঘোষিত উপজেলার সাহেবেরহাট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন করা হয়নি।

অভিযোগ উঠেছে, ইউনিয়নগুলোর সম্মেলনকে ঘিরে আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর তালিকায় নাশকতা মামলার আসামি ও বিএনপি-জামায়াতের অনুপ্রবেশকারীদের নাম রাখা হয়েছে। এছাড়াও ফরম সংগ্রহ করতে ইউনিয়নের সভাপতি-সম্পাদক প্রার্থীদের কাছ থেকে ১০ হাজার ১০০ টাকা আদায় করা হয়।

এসব অভিযোগের ভিত্তিতে শনিবার সকালে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন উপজেলা কমিটির সভাপতি-সম্পাদককে ৮টি ইউনিয়নের সম্মেলন স্থগিত করার নির্দেশ দেন।

এ বিষয়ে নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন বলেন, ‘এখনো কাউন্সিলরদের তালিকা প্রস্তুত হয়নি। কয়েকজন কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে বিতর্ক রয়েছে। এজন্য ইউনিয়নগুলোর সম্মেলন স্থগিত করা হয়।’

তবে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু এ বিষয়ে বলেন, ‘প্রার্থীদের কাছ থেকে ১০০ টাকা করে নেওয়ার জন্য বলা হয়েছিলো। কিন্তু ১০ হাজার ১০০ টাকা করে আদায় করা হয়। এ অভিযোগে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ টাকা নেওয়া বন্ধ করতে বলে আমাকে ফোন করেছেন। তবে সম্মেলন স্থগিত করার জন্য কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। দুই-একদিন পর পরবর্তী সম্মেলনগুলো করার জন্য আমাদের জেলা সাধারণ সম্পাদককে বলেছি।’

কমলনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একেএম নুরুল আমিন রাজু বলেন, ‘সম্মেলনের মঞ্চ ও খাবারসহ আনুসাঙ্গিক খরচের জন্য প্রার্থীদের কাছ থেকে ১০ হাজার ১০০ টাকা করে নেওয়া হয়। এতে কোনো অসৎ উদ্দেশ্য নেই। এ প্রেক্ষাপটে নেতাকর্মীরা বিভ্রান্তিতে রয়েছে।’

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম নুরুল আমিন এ বিষয়ে বলেন, ‘জেলা কমিটির সভাপতি বলেছেন, সম্মেলন স্থগিত করা হয়নি। কিন্তু সম্মেলন স্থগিত করার জন্য সাধারণ সম্পাদক আমাদেরকে নির্দেশ দিয়েছেন। এ কারণে শনিবার বিকেলে পূর্বঘোষিত উপজেলার সাহেবেরহাট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন করা হয়নি।’
দলীয় সূত্র জানায়, সাহেবেরহাট, চরলরেন্স, চরমার্টিন, চরফলকন, পাটারিরহাট, হাজিরহাট, চরকাদিরা ও তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নের সম্মেলন স্থগিত করা হয়। এরআগে গত ৬ ডিসেম্বর, শুক্রবার চরকালকিনি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২ নভেম্বর উপজেলার তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়। টাকার বিনিময়ে কমিটিগুলোর দেওয়ার অভিযোগে ৩ নভেম্বর হাজিরহাট ও ৪ নভেম্বর ফাজিল বেপারীরহাটে বিক্ষোভ মিছিল করে পদ বঞ্চিতরা।

এদিকে নাশকতা মামলার আসামি সুলতান আহমেদ টিপু তোরাবগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রার্থী হিসেবে ফরম সংগ্রহ করায় আওয়ামী লীগের একটি অংশ ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন। সম্পাদনা: জেরিন মাশফিক

সর্বাধিক পঠিত