প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভ্রমণ আপনাকে সুখি হতে শেখায় !

শাহীন খন্দকার : চলার পথে কর্ম জীবনে অনেক সময়ই বিষন্নতায় ভরে উঠে জীবন ! সমাজ সংসারে কিংবা অফিসের কাজ নিয়ে চিন্তিত? একমাত্র ভ্রমণই আপনাকে চিন্তা মুক্ত রাখতে পারে। তাই একটু সময়ের জন্য হলেও কোথাও থেকে ঘুরে আসতে পারেন। দেখবেন সব কিছুই আগের মতোই মনে হচ্ছে। এছাড়া, ভ্রমণ মানুষকে ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তোলে। যখন আপনি বিশ্ব এবং মানুষ সম্পর্কে জানবেন, নিজের সীমাবদ্ধতাকে জয় করবেন এবং নতুন কিছু চেষ্টা করবেন জানার। তখন আপনি নিজেকে আরও বড় মনের অধিকারী, বহির্মুখী এবং আত্মবিশ্বাসী মানুষ হিসেবে আবিষ্কার করবেন।

ভ্রমণ মানুষকে প্রাণবন্ত করে তোলে। আমার মতে ভ্রমণের শুরু থেকে শেষটাই বেশি সুন্দর হয়। ভ্রমণ এমন একটা বিষয় যা নিজেকে কেবলই একজন ভালো মানুষই নয় বরং একজন পৃথিবীর মতো নিজেকে বিশাল মনে হয়। ভ্রমণ মানুষকে এমন ব্যক্তিত্বের অধিকারী করে যার সান্নিধ্য সবাই পেতে চায়, তার প্রতি এক রকম আকর্ষণ অনুভব করে।

ভ্রমণ শুধু আপনাকে অপরিচিতদের সঙ্গে স্বতঃস্ফূর্তভাবে কথা বলতেই শেখায় না বরং আপনাকে এ বিষয়ে আরও আন্তরিকও করে তুলে। তবে সব সময়ের আলোচনায় একই প্রশ্ন বিরক্তিকর হয়ে ওঠার সম্ভাবনা থাকে। কিছুক্ষণ পর দেখবেন কে কোথা থেকে এসেছে, কোথায় যাচ্ছে কিংবা কতদিন ধরে ভ্রমণ করছে, কোথায় যাচ্ছেন, কতদিন ধরে ভ্রমণ করছে ইত্যাদি বিষয়ে আর কোন আকর্ষণ থাকবে না। এমন প্রশ্নের মাধ্যমে আসলে সেই ব্যক্তির সম্পর্কে তেমন কিছু জানা যায় না। আপনি সংক্ষিপ্ত আলাপেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবেন এবং সংক্ষিপ্ত পরিসরেই আকর্ষণীয় প্রশ্নগুলো জিজ্ঞাসা করবেন যেগুলো গুরুত্বপূর্ণ এবং তা আপনাকে সামনের ব্যক্তিটি সম্পর্কে আরও জানতে সাহায্য করবে। এক কথায় বলা যায় আপনি মহাভারত জয় করে ফেলেছেন!

ভ্রমণপাগল হিসেবে সব পাগলামিগুলো আপনার জীবনে আরও অনেক পরিবর্তন নিয়ে আসবে। মানসিক চাপ মানুষের বয়স সময়ের আগেই বহুগুণে বাড়িয়ে দেয়। ভ্রমণের সময় নিশ্চিন্ত, প্রশান্তি দানকারী রাস্তায় কাটানো দিনগুলো আপনাকে আত্মবিশ্বাসী এবং উদীপ্ত করে! এর দ্বারা আপনার অকালে বুড়িয়ে যাওয়ার গতি কমে যায় এবং আপনাকে দেখতে আরও তরুণ এবং আকর্ষণীয় লাগে। ভ্রমণ যদি শুধু আপনার জন্য হোটেলে বসে কোমল পানীয়র ঠান্ডা চুমুকে নিজের মস্তিষ্ক হিমায়িত করার প্রক্রিয়ার নামমাত্র প্রচেষ্টা না হয় ।

ভ্রমণ আপনাকে ইতিহাস,সংস্কৃতি সম্পর্কে জানাবে, এমন কিছু রহস্যঘন জায়গা সম্পর্কে যা স্বল্প সময়ে আপনি জানতে পারবেন মানুষের আচরণ সম্পর্কে, কি তার সংস্কৃতি আর ভাষা। যা কিছু বই থেকেও শেখা যায় না তা আপনি শুধুমাত্র দেশ-বিদেশের রাস্তায় ঘুরেই শিখতে পারেন। ভ্রমণ আপনাকে সুখী হতে শেখায়। প্রতিটা ভ্রমণ শেষে আপনি আরও নিখুঁত, আত্মবিশ্বাসী হবেন এবং পৃথিবীকে আরও অনন্যসাপেক্ষ জায়গা হিসেবে দেখতে শিখবেন। এরপরও আপনি খুশি না হয়ে পারবেন কি ?

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত