প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সরকারি কর্মচারীরা ব্যক্তিগত ই-মেইল ব্যবহার করতে পারবেন না, বললেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

মো. আখতারুজ্জামান : সরকারি ও অফিসিয়াল কাজে কর্মকর্তাদের সরকারি বা সরকার প্রদত্ত ই-মেইল ঠিকানা ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। সরকারের নির্ধারিত সম্বলিত ই-মেইলের বাইরে ব্যক্তিগত ই-মেইল ব্যবহারের ওপর কড়াকড়ি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। রোববার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে আইসিটি টাওয়ারে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকারি কর্মকর্তারা এখনও ব্যক্তিগত ই-মেইল ঠিকানা দিয়েই দাপ্তরিক কাজ করছেন। এটা ঠিক না। অবশ্য ৯০ শতাংশ কর্মকর্তাই করছেন। আবার অনেকেই জানেন না, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) থেকে সব কর্মকর্তাকে একটি সরকারি ই-মেইল ঠিকানা দেওয়া হয়। ই-মেইল ব্যবহারে জন্য অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে ‘ই-মেইল পলিসি’। সরকারি কর্মকর্তাদের সরকার প্রদত্ত ই-মেইল ব্যবহারে বাধ্য করতে আইন তৈরি করা হচ্ছে।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, বিসিসি থেকে একটি নোটিশ জারি করা হতে পারে সবার উদ্দেশ্যে সরকার প্রদত্ত ইমেইল ব্যবহার বাধ্যতাম‚লক করার জন্য। পুরো দেশ যেখানে ডিজিটাল হচ্ছে সেখানে ঝুঁকিও থাকবে। তবে সেই ঝুঁকি মোকাবিলায়ে আমরা কোনো ফাঁক রাখতে চাই না।

তিনি বলেন, সাইবার হামলা থেকে রক্ষার্থে সচেতনতা প্রথম জিনিস। দ্বিতীয় বিষয় হচ্ছে সক্ষমতা। সক্ষমতা অর্জনে সরকার, প্রাইভেট খাত, ইন্ডাস্ট্রি ও একাডেমিয়াকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। আর তৃতীয় বিষয় হচ্ছে ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ। এর জন্য আমরা কাজ করছি।

তিনি আরও বলেন, এখন কাউকে ক্ষতি করতে হলে হাতে আঘাত করতে হয় না। কোনো প্রতিষ্ঠানকে আঘাত করতে হলে বড় কিছু করা লাগে। একটি রাষ্ট্রকে ধ্বংস করে দিতে এখন আর পারমাণবিক বোমা নিক্ষেপ করতে হয় না। সাইবার হামলা করলেই হয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মূখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমরা বলেছিলাম প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে অন্তত একটি অনলাইন কোর্স দেবো। পর্যায়ক্রমে অনেকগুলো কোর্স অনলাইনে নিয়ে যাবো।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, আইসিটি বিভাগের সচিব এন এম জিয়াউল আলম, ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সির (ডিএসএ) মহাপরিচালক রাশেদুল ইসলাম, ডিএসএ’র পরিচালক তারেক এম বরকত উল্লাহ প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত