প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সরকারি চাকরিতে নিয়োগের কথা বলে অর্থ আত্মসাতকারী আটক

সুজন কৈরী : রাজধানীর খিলগাঁও এলাকা থেকে এনএসআইয়ের ফিল্ড অফিসারসহ সরকারী চাকরীতে নিয়োগের কথা বলে অর্থ আত্মসাৎকারী চক্রের এক সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-৩। আটকৃতের নাম মোঃ গোলবার হোসেন ওরফে শ্রাবন (২৮)। তার কাছ থেকে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়েছে।

 

শনিবার বিকেলে র‌্যাব-৩ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এবিএম ফয়জুল ইসলাম জানান, গত ২৩ মে ব্যাটালিয়নের খিলগাঁও ক্যাম্পে রাজধানীর দক্ষিণ বনশ্রীর বাসিন্দা একজন ভুক্তভোগী তরুণী অভিযোগ করেন যে, শ্রাবন এনএসআইয়ের ফিল্ড অফিসার পদে পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রদর্শনসহ তাকে ওই পদে চাকরী পাইয়ে দেয়ার বিষয়ে আশ্বস্ত করে এবং ওই পদের জন্য দেড়লাখ টাকা সিকিউরিটি লাগার কথা জানায়। চাকরী পাওয়ার আশায় ভুক্তভোগী ওই তরুণী তার বাবার মাধ্যমে শ্রাবণকে টাকা দেন। এরপর গত ৩০ জানুয়ারি ডাকযোগে ভুক্তভোগী একটি নিয়োগপত্র পান। বিষয়টি শ্রাবনকে অবহিত করলে, তিনি ভুক্তভোগীর মোবাইলে একটি ইমেইল একাউন্ট খুলে দেয় এবং জানায়, ওই ইমেইলের মাধ্যমেই তার কাজে যোগদান, বেতন, রেশন, সরকারী নির্দেশনাসহ যাবতীয় যোগাযোগ করা হবে। ওই একাউন্টে প্রতিদিন ন্যাশনাল সিকিউরিটি নামক একটি ইমেইল থেকে বিভিন্ন ধরনের নিদের্শনা আসত এবং দিন শেষে ভুক্তভোগী তার যাবতীয় কাজের বিবরণ এনএসআইয়ের ই-মেইল এ পাঠাতো। চাকরিতে যোগদানের পর ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের একাউন্টে এপ্রিল ও মে মাসের বেতন বাবদ ২৮ হাজার টাকা, ফিল্ডে তথ্য সংগ্রহের যাতায়াত খরচ বাবদ ডাচ বাংলা মোবাইল একাউন্টে ৩ হাজার ৯শ’ টাকা এবং এবং মার্চ/এপ্রিল/মে মাসের রেশন ভুক্তভোগীর দক্ষিণ বনশ্রীর বাসায় বাহক দিয়ে পাঠানো হতো। তার চাকরির নিয়োগ প্রক্রিয়া এবং কাজের ধরন নিয়ে বন্ধু বান্ধব ও আত্মীয় স্বজনের সঙ্গে আলাপকালে প্রতারণার বিষয়টি ভুক্তভোগী বুঝতে পারেন।

 

তিনি আরো জানান, অভিযোগ পেয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ব্যাটালিয়নের একটি দল শুক্রবার সকালে দক্ষিণ বনশ্রীর বাসা থেকে শ্রাবণকে আটক করে।এ সময় তার কাছ থেকে ১০টি এনএসআইয়ের নিয়োগপত্র, এনএসআই, এমইএস, বাংলাদেশ সমরাস্ত্র কারখানা নামের ৩টি সিল, ইসলামী বাংলাদেশ ব্যাংক লিমিটেডের জমা বই, ভুক্তভোগীর ব্যাংক হিসাব নম্বরে পাঠানো টাকা জমা রশিদ, নোট বুক, ল্যাপটপ, মোবাইল, বাংলাদেশ অর্ডিনেন্স ফ্যাক্টরিজের (বিওএফ) সহকারী ইঞ্জিনিয়ারের একটি নকল আইডি কার্ড উদ্ধার করা হয়।

 

আটক শ্রাবণ জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, প্রতারণা করে অবৈধভাবে অর্থ উপার্জনের জন্য এনএসআইয়ের ফিল্ড এজেন্ট নিয়োগের কথা বলে চাকরী করতে আগ্রহীদের কাছ থেকে সে ২ থেকে ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত আত্মসাৎ করেছে। এরপর এনএসআইয়ের ডিজির স্বাক্ষর জাল করে, কিউআর আইডি তৈরীর অ্যাপসের মাধ্যমে কিইউআর আইডি ও এনএসআইয়ের আইডি নম্বরসহ ভুয়া নিয়োগপত্র তৈরী করে সংশ্লিষ্ট প্রার্থীর স্থায়ী ঠিকানায় ডাকযোগে নিয়োগপত্র পাঠাতো। চাকরী প্রাপ্তদের কাছ থেকে আরো টাকা আত্মসাতের উদ্দেশে চাকরী প্রাপ্তদের ব্যাংক একাউন্টে বেতন এবং বাড়ীতে লোক মারফত রেশন পাঠাতো। একপর্যায়ে চাকরী স্থায়ীকরণের কথা বলে আরো টাকা চাইত। এছাড়াও চাকরী প্রাপ্তদের মাধ্যমে তাদের নিকটাত্মীয়দের চাকরী দেয়ার কথা বলে টাকা আত্মসাৎ করত। সেইসঙ্গে টাকা আত্মসাৎ এরপর অবৈধ লেনদেনের অভিযোগে চাকরী প্রাপ্তদের চাকরী থেকে বরখাস্ত করার চিঠি পাঠাতো। সে আরো জানায়, তার নামে-বেনামে অনেক ইমেইল একাউন্ট রয়েছে। ন্যাশনাল সিকিউরিটি নামক ই-মেইল এড্রেস তার ব্যবহৃত মোবাইলে লগ ইন করে সকল প্রতারণা করছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত