প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিমান ছিনতাই মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিতে যাচ্ছে কাউন্টার টেররিজম

ফাতেমা ইসলাম : ছিনতাইকারী পলাশের কোনো সহযোগী কিংবা ইন্ধনদাতার সন্ধান না পাওয়ায় বহুল আলোচিত বিমান ছিনতাই মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিতে যাচ্ছে কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। চার্জশিটের অনুকরণে প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হলেও একমাত্র আসামী পলাশ নিহত হওয়ায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন হিসাবেই আদালতে দাখিল হবে। তবে শেষ ভরসা হিসাবে চিত্র নায়িকা শিমলাকে জিজ্ঞাসাবাদের নোটিশ দিয়েছে সংস্থাটি। এদিকে তদন্তে ত্রুটি পাওয়া গেলে পুনঃতদন্তের আবেদন জানানো হবে বলে জানিয়েছেন সরকার নিয়োজিত কৌসুলি। সময়

সমস্ত তথ্য প্রমাণের পাশাপাশি বিমানের পাইলট, বিমান বন্দরের ম্যানেজারসহ ১৮ জনের সাক্ষ্য শেষ পর্যন্ত কোনো কাজেই আসছে না। কাউন্টার টেররিজম ইউনিট এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি কার সহযোগিতায় কিংবা ইন্ধনে নারায়ণগঞ্জের পলাশ বিমান ছিনতাইয়ের চেষ্টা করেছিলো। তবে নিহত পলাশের স্ত্রী চিত্র নায়িকা শিমলার মাধ্যমে কিছুটা আশার আলো সৃষ্টি হলেও শেষ পর্যন্ত শিমলার অসহযোগিতার কারণে তাও সম্ভব হচ্ছে না। তারপরেও শিমলার প্রতি জিজ্ঞাসাবাদের জন দ্বিতীয় বারের মতো নোটিশ পাঠিয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তা।

তদন্ত কর্মকর্তা রাজেশ বড়ুয়া বলেন, শিমলাকে জিজ্ঞাসাবাদের চেষ্টা চলছে, তার স্থায়ী ও অস্থায়ী ঠিকানায় আমরা নোটিশ পাঠিয়ে দিয়েছি।

চট্রগ্রাম নগরীর পতেঙ্গা থানায় সিভিল এভিয়েশন বিভাগের প্রযুক্তি সহকারী দেবব্রত সরকার বাদী হয়ে দায়েরকৃত বহুল আলোচিত এ মামলাটি গত ২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে তদন্ত করছে সিএমপি’র কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। মামলার তদন্ত যতটা শেষ পর্যায়ে আসছে, তদন্তকারী সংস্থার বাধ্য হতে হচ্ছে ঘটনার সাথে পলাশ ছাড়া আর কারো সম্পৃক্তা ছিলো না প্রমাণে। তদন্তে বের হয়ে আসছে, ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত প্লাস্টিকের খেলার পিস্তলটি সাথে নিয়ে ঢাকা শাহজালাল বিমান বন্দরে ঢুকেছিলো পলাশ। এরপর বাথরুমে গিয়ে কথিত বোমাটি তার শরীরের সাথে সংযুক্ত করেছিলো।

কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের উপ কমিশনার মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, কারো কোন ইন্ধন আছে কিনা আমরা তদন্ত করে দেখবো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত