প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ওপেকের মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে তেল উৎপাদনকারী দেশগুলো বিশ্বের জ্বালানি মজুদ কমিয়ে আনার পক্ষে, জানালেন সৌদি জ্বালানিমন্ত্রী

নূর মাজিদ : জেদ্দাতে গত রোববার অনুষ্ঠিত বৈঠক শেষে সৌদি আরবের জ্বালানিমন্ত্রী খালিদ আল-ফালিহ একথা জানান। ওই বৈঠকে বিশ্বের তেল উৎপাদক দেশগুলোর বৃহত্তম জোট ওপেকের জ্বালানিমন্ত্রীরা যোগ দেন। এছাড়াও, ওপেকের বাহিরে বৃহত্তম তেল উৎপাদক দেশ রাশিয়াসহ আফ্রিকার কয়েকটি বৃহৎ তেল উৎপাদক দেশের মন্ত্রীরাও উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকের পর সৌদি জ্বালানিমন্ত্রীর বক্তব্যের মধ্য দিয়ে বিশ্ববাজারে তেলের দর আরো বৃদ্ধির প্রতি ওপেকের আগ্রহ ফুটে ওঠে। সূত্র : রয়টার্স

অবশ্য বৈঠকের পূর্বে গত শনিবারেই রয়টার্সকে এই বিষয়ে খানিকটা ইঙ্গিত দিয়েছিলেন আল-ফালিহ। এসময়য় তিনি রয়টার্সকে জানান, ‘আগামী জুনের বৈঠকের আগে তেলের সরবরাহ বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নেবে না ওপেক। এই বিষয়ে তিনি বলেন, এখন (অপরিশোধিত তেলের) বাজারে কোন সংকট আছে কিনা সেই বিষয়ে আমি নিশ্চিত নই। তবে আমরা সবসময় বাজার পর্যালোচনা খতিয়ে দেখি। যদি তেমন কোন সম্ভাবনা দেখা যায়, তবে আমরা অবশ্যই পদক্ষেপ নেব।’
এই সময় তিনি আরো বলেন, ‘বর্তমান সকল সূচকেই বাজার স্থিতিশীল রয়েছে এমন সংকেত পাওয়া যাচ্ছে। গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রীয় মজুদ বিপুল পরিমাণে বেড়েছে । তাই সরবরাহের সংকট অচিরেই দেখা দেবে এমন কোন সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না। ’

এরপর গতকাল তিনি ওপেকের অতি-সা¤প্রতিক অবস্থান ব্যাখ্যা করে বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের অন্যান্য বৃহৎ দেশের কাছে রাষ্ট্রীয়ভাবে যে তেলের মজুদ রয়েছে তা কিম্যে আনার পক্ষে সকলেই অভিমত দিয়েছেন। তাই ধীরগতিতে সরবরাহ নিয়ন্ত্রণ করে এই সকল মজুদ কমিয়ে আনা হবে। এর ফলে বিশ্ববাজারে অপরিশোধিত জ্বালানি তেল ওপেকের প্রত্যাশিত দরে অবস্থান করবে।’

এর মাধ্যমে সৌদিমন্ত্রী বিশ্ববাজার নিয়ন্ত্রণে ওপেক যে নিজস্ব প্রভাব আরো বৃদ্ধি করতে চায়, সেদিকেও ইঙ্গিত দিয়েছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত