প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এটা কি বয়স্কভাতা! নাকি বয়স্কদের যন্ত্রনা দেওয়ার ভাতা!!

হ্যাপি আক্তার : দেশের অসহায়-দুঃস্থ্য বৃদ্ধ/বৃদ্ধাদের বয়স্ক ভাতা পাবার জন্য উদ্যোগ কতটা সফল তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। সেখানে বলা হচ্ছে এটা কি বয়স্কভাতা! নাকি বয়স্কদের যন্ত্রনা দেওয়ার ভাতা!
শাখা চট্টগ্রামে ব্যাংক বহদ্দারহাটায় ভাতা পাওয়ার জন্য বয়স্কদের সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বসে থাকতে হয় বাইরে রোদে, শুধুমাত্র ১৫০০ টাকার জন্য। আর সকাল ৮টায় এসে যদি কেউ লাইন না ধরেন তাহলে বই জমা নেওয়া হয় না। ব্যাংকের ভেতরে তাদের বসতেও দেওয়া হয় না।

ব্যাংকের কর্মকর্তারা ব্যাংকের কাজ শুরু করেন ১০টার অনেক পরে। তবে কোনো বয়স্ক ১০টার পরে বই জমা দিতে এলে তখন ওনারা বলেন অন্যদিন আসতে, আজ বই জমা নেওয়া হবে না। অথচ বয়স্করা একবার আসতে তাদের কি পরিমান কষ্ট হয় সেটা একমাত্র আল্লাহই ভালো জানেন। কষ্ট করে আসার পরে ও ভোগান্তি পোহাতে হয়। ন্যুনতম সম্মানটুকুও দেওয়া হয় না তাদেরকে। ব্যাংকে এলে মনে হয় তাদের গুরুত্বপূর্ণ সময় বয়স্করা নষ্ট করে ফেলছেন।

অথচ কর্মকর্তাদের কেউ কেউ কাজের সময় গল্প করেন, চা-বিস্কুট খান, দুপুরে ভাত খান। আর বয়স্করা সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত না খেয়ে রাস্তায় বসে থাকেন, কখন নাম ডাকবে আর কখন সেই টাকা পেলে ঔষধ কিনে বাড়ী যাবেন!

অনেকেরই প্রশ্ন, এসব দেখার কি কেউ নেই? কিভাবে আমরা উন্নয়নের গল্প করি, সিঙ্গাপুরের সাথে তুলনা করি। ডিজিট্যাল ডিজিট্যাল বলে মুখে ফেনা তুলি।  সম্পাদনা : কায়কোবাদ মিলন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত