প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঝড়-বৃষ্টির সঙ্গে পড়বে কুয়াশাও

ডেস্ক রিপোর্ট : বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপের প্রভাবে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ঝড়, বৃষ্টি, বজ্রপাত অব্যাহত রয়েছে। এর সঙ্গে এবার রাতের শেষভাবে কোথাও কোথাও হালকা কুয়াশা পড়তে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। সমুন্দ্রবন্দরগুলোতে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত বহাল রাখা হয়েছে। এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবারও ঝড় ও বজ্রপাতে মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টায় পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, পশ্চিমা লঘুচাপ গাঙ্গেয় বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ এবং তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝোড়ো হাওয়াসহ হালকা বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। শেষ রাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও হালকা কুয়াশা পড়তে পারে। সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা (১-৩) ডিগ্রি সেলসিয়াস বৃদ্ধি এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে।

বরগুনা : আকস্মিক ঝড়ে পাথরঘাটায় বলেশ্বর নদীতে মাছধরা ট্রলার ডুবে জামাল হোসেন (২৮) নামে জেলের মৃত্যু হয়েছে। বরগুনা সদর, পাথরঘাটা ও তালতলী উপজেলার প্রায় ৩ শতাধিক ঘর সম্পূর্ণ ও ২ শতাধিক ঘর আংশিক বিধ্বস্ত হয়েছে। এতে সহস্রাধিক মানুষ গৃহহীন ও আহত হয়েছেন অর্ধশতাধিক। গত বুধবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে বজ্রসহ বৃষ্টি শুরু হয়। বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে আঘাত হানে ঝড়।

পাথরঘাটা উপজেলার কালমেঘা ইউনিয়নের পূর্ব কালমেঘা, পাথরঘাটা পৌরসভা, সদর ইউনিয়নের রুহিতা ও পদ্মা এলাকায় দেড় শতাধিক ঘরবাড়ি সম্পূর্ণ ও শতাধিক ঘরবাড়ি আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কমপক্ষে ৫ শতাধিক মানুষ গৃহহীন ও কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়েছেন।

জেলা প্রশাসক মো. কবীর মাহমুদ বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে ইতিমধ্যেই সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহায়তা দেওয়া হবে।

সিরাজগঞ্জ : জেলার সদর উপজেলায় বুধবার বিকালে ঝড় ও বজ্রপাতে দুজনের মৃত্যু এবং তিনজন আহত হয়েছেন। সিরাজগঞ্জ সদরের রতনকান্দি ইউনিয়নের বাহুকা গ্রামে বজ্রপাতে নাঈম হোসেন (১৮) নামে এক কলেজছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। তিনি ওই গ্রামের সানোয়ার হোসেনের ছেলে ও স্থানীয় বাগবাটি ডিগ্রি কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র।

একই সময় সদর উপজেলার সায়েদাবাদ ইউনিয়নের হাটসারটিয়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের স্ত্রী সুফিয়া খাতুন (৫০) গাছচাপায় মৃত্যুবরণ করেন। সায়েদাবাদ ইউনিয়নের মেম্বার আব্দুল মমিন জানান, পুনর্বাসন এলাকা থেকে বাড়ি ফেরার পথে ঝড়ে একটি গাছ উপড়ে তার ওপর পড়লে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।সূত্র: দেশ রুপান্তর

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত