প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভেবেছিলাম কিছু লিখবো না

সামা মেহজাবিন রিনতি : এই রকম দুই দিন পর পর, একেকটা ঘটনা ঘটে। আমরা ‘শোকাবহ বাংলাদেশ’ টাইপ করে নিউজ ফিড সরব রাখি। যাদের মন নরম তারা হয়তো দুই রাত এগুলো চিন্তা করে দেড়িতে ঘুমাই। আরো কিছু ভালো মানুষ আছেন, তারা সত্যি সত্যি আল্লাহর কাছে হাত তুলে দোয়া করে দেন? এভাবেই চলছে। দূর থেকে মেডিক্যালে তোলা ২০-৩০ টা কালো লাশের সারির ছবি। জুম ইন করার সাহস আমরা পাইনা। তাইলে তাদের পরিবারের কি অবস্থা? সহ্যশক্তির স্কেলটা কতো বড় হলে এই দেশের মানুষ হওয়া যায়? এই রকম হঠাৎ করে পুড়ে ছাই হওয়ার কষ্টগুলো আসলে কেমন? তার মধ্যে কতো মায়া, কতো কিছু মনে পড়া, শেষ বার কি খেতে চেয়েছিলো, আগামীকাল কোথায় ঘুরতে যাবার প্ল্যান ছিলো, কোন রঙ পছন্দের ছিলো…. আহারে! সেই লিস্টের কি কোনো শেষ আছে? অনন্তকাল বেঁচে থাকা যাবে সেই লিস্ট বানাতে বানাতে। নীতি নির্ধারণকারীরা বড় গাড়ি আর এসি থেকে বের হয়ে একটু দেখবেন প্লিজ! আগুনের তাপটা কেমন? ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত