প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রধান দুই এজেন্ডার ভিত্তিতে ৬ ফ্রেব্রুয়ারী ঐক্যফ্রন্টের জাতীয় সংলাপ

শাহানুজ্জামান টিটু : জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জাতীয় সংলাপ ৬ ফেব্রুয়ারি। প্রধান দুই ইস্যুতে আলোচনা হবে। সংলাপে আমন্ত্রণ জানানো হবে না সরকারি দলকে। এখনো মেলেনি ভেন্যুর অনুমতি। ভেন্যু না পেলে প্রেসক্লাবেই হবে ঐক্যফ্রন্টের জাতীয় সংলাপ। প্রধান দুই এজেন্ডা হলো- ১. একাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোট লুষ্ঠন ও ডাকাতি হয়েছে এ বিষয়ে ঐক্যফ্রন্টের করণীয় ২. ঐক্যফ্রন্ট থেকে যে ৮জন সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন তারা সংসদে যাবেন কিনা। এই দুই বিষয়ে রাজনৈতিক দল, পেশাজীবী ও বিশিষ্টজনের মতামত, পরামর্শ জানা হবে। তাদের পরামর্শ ও মতামতের ভিত্তিতে পরবর্তী করনীয় নির্ধারণ করবে ঐক্যফ্রন্ট।

জানতে চাইলে ঐক্যফ্রন্টের পরামর্শক গণস্বাস্থ্যের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, সংলাপের জন্য এখনো পুলিশের অনুমতি পাইনি। অনুমতি না পেলে সংলাপ করবো কিভাবে। রমনা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটশন ও কাকরাইল ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন এই দুই স্থানের জন্য আমরা আবেদন করেছি। কিন্তু পুলিশ এখনো অনুমতি দেয়নি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ভেন্যু না পেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংলাপ হবে। প্রধান দুটি বিষয়ে আমরা রাজনৈতিক দল, পেশাজীবী ও বিশিষ্টজনের সুচিন্তিত মতামত গ্রহণ করবো। আমরা নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন করছি। এরবাইরে সংসদে যাওয়া না যাওয়া, ও ঐক্যফ্রন্টের ভবিষ্যত কর্মপন্থা কেমন হবে এসব বিষয়ে তাদের ভাবনা ও পরামর্শ নেবো।

সংলাপে সংলাপে আমন্ত্রণ জানানো হবে কিনা এমন প্রশ্নে জবাবে নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নার উত্তর ‘না’। তিনি বলেন, আমরা বসে সংলাপের বিষয়ে সিদ্ধান্ত ও করণীয় ঠিক করবো।

গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী জানান, সভাপতি ড. কামাল হোসেন সাহেব দেশে ফেরার পর সংলাপ বিষয়ে পরবর্তী করণীয় আলোচনা হবে। এখনো পর্যন্ত বলার মতো তেমন অগ্রগতি নেই। ভেন্যুর অনুমতি আমরা এখনো পাইনি। ভেন্যু না পেলে দাওয়াত দেবো কিভাবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত