প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

নাইক্ষ্যংছড়ি থেকে ৩ জনের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার

হাবিবুর রহমান সোহেল, নাইক্ষ্যংছড়ি: বহুল আলোচিত পাহাড়ী সন্ত্রাসী বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি গর্জনিয়ার ত্রাস্ ও দুর্ধর্ষ ডাকাত আনোয়ার হোসেন প্রকাশ আনাইয়াসহ ৩ জন নিহত হয়েছে। রবিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকালে পার্বত্য জেলা বান্দরবানের বাইশারী নারিসবুনিয়া পিএইচপি ১১ নম্বর বাগান থেকে তিন জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহতরা হলো- বান্দরবানের বাইশারী চাইঙ্গা বাজার এলাকার আবদুস সোবাহানের ছেলে আনোয়ার হোসেন ওরফে আনাইয়া (২৭), রামুর ঈদগড় কোদালিয়া কাটার সৈয়দ হোসেনের ছেলে পারভেজ হোসেন বাপ্পি (২৩) ও গর্জনিয়া বড়বিল এলাকার আবদুল হামিদ (২৩)।

পুলিশ বলছে, সন্ত্রাসীদের মধ্যে অন্ত দ্বন্দে আনোয়ার বাহিনী প্রধান আনোয়ার ডাকাত, ও তার উপবাহিনী প্রধান হামিদ ডাকাতসহ তিনজনের মৃত্যু।

বাইশারী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ হাবিবুর রহমান জানিয়েছেন, দুই ডাকাত দলের মধ্যে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তারা নিহত হয়েছে। নিহতদের মরদেহ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হচ্ছে। আইসি জানান, ওরা তিনজনই চিহ্নিত ডাকাত ও সন্ত্রাসী। তাদের বিরুদ্ধে খুন, ডাকাতি, অপহরণসহ ২ ডজনের বেশি বিভিন্ন মামলা রয়েছে। পরে নাইক্ষ্যংছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ আলমগীর জানান, তিন জন সন্ত্রাসীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের অন্ত দ্বন্দের জের ধরে এক পক্ষ অন্য পক্ষে গুলি করে হত্যা করেছে বলে জানান ওসি।

প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, বাগানের ভেতর লাশ তিনটি পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে গুলিবিদ্ধ তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করে।

পুলিশের দাবি, রাবার বাগান দখল নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে তিন ডাকাত নিহত হয়েছে।এদিকে, গুলিবিদ্ধ তিন ডাকাতের লাশের পাশ থেকে ৩টি একনলা বন্দুক, ১টি কাটা বন্দুক ও ৮ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। এনিয়ে গত এক সপ্তাহে বাইশারী থেকে ৪ ডাকাতের লাশ উদ্ধার করল পুলিশ। এর আগে পুলিশের গুলিতে নিহত হয় ডাকাত আনোয়ার।

বান্দরবানের পুলিশ সুপার (এসপি) জাকির হোসেন মজুমদার জানান, শনিবার গভীর রাতে দুই ডাকাত দলের মধ্যে সংঘর্ষে ডাকাত সর্দার আনাইয়্যাসহ ৩ ডাকাত নিহত হয়েছে বলে স্থানীয়রা পুলিশকে জানিয়েছে। রোববার সকালে স্থানীয়রা রাবার বাগান এলাকায় লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।

পুলিশ সুপার আরো জানান, কক্সবাজারের রামু ও বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারীসহ পাশ্ববর্তী এলাকায় দীর্ঘদিন থেকে অপহরণ চাঁদাবাজি মুক্তিপণ আদায়সহ নানা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালাতো এই আনোয়ার ডাকাত ওরফে প্রকাশ আনাইয়্যা ও তার গ্রুপর সদস্যরা। তাকে ধরার জন্য পুলিশ ও অন্যান্য বাহিনীর সদস্যরা বিভিন্ন সময়ে অভিযানও চালিয়েছে। এলাকার ত্রাস ছিল এই আনাইয়্যা।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত