প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পূজার আগেই উজ্জ্বল ত্বক

অনলাইন ডেস্ক : বাইরে প্রচ- তাপপ্রবাহ। দিনের বেলা বের হওয়াই দায়। ফলে রোজই রোদে পুড়ছে ত্বক, যা থেকে দেখা দিচ্ছে ত্বকের নানাবিধ সমস্যা। এদিকে সামনেই শারদীয় দুর্গোৎসব। তাই পূজার আগে উজ্জ্বল ত্বক পেতে এখন থেকেই শুরু করুন পরিচর্যা। কীভাবে?

নানা কাজে আমরা বাইরে বের হই। আর বাইরে বের হলে শরীরে রোদ লাগবে, এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু রোদে বের হলে সমস্যা যেটা হয় সেটা হচ্ছে ত্বক পুড়ে যায়। শুনতে আহামরি না মনে হলেও যারা ভুক্তভোগী তারা কিন্তু ভালোই জানেন, কী ভীষণ এই যন্ত্রণা। সামনেই পূজা। এখনই যতœ নিলে ত্বকের সমস্যা দূর করে আনুন উজ্জ্বলতা। হার্বস আয়ুর্বেদিক স্কিন কেয়ার ক্লিনিকের ত্বক বিশেষজ্ঞ শাহীনা আফরিন মৌসুমী বলেন, ‘রোদে পুড়ে যাওয়া মানে কেবল রঙ কালো হয়ে যাওয়া নয়, সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি আমাদের ত্বকের আরও বিভিন্ন ধরনের ক্ষতি করে। তবে রোদে পোড়া ত্বকের সমস্যা সমাধানে বিভিন্ন ধরনের ট্রিটমেন্টও রয়েছে। এ ক্ষেত্রে নিয়মিত ঘরোয়া পরিচর্যা করতে হবে। সমস্যা জটিল হলে বিভিন্ন বিউটি স্যালন, স্কিন কেয়ার ক্লিনিকগুলোয় স্কিন ট্রিটমেন্ট করাতে পারেন।’

রোদে পোড়া ত্বকের সমস্যা
রোদে পোড়ার কারণে ত্বকের সৌন্দর্য যে শুধু নষ্ট হয় তাই নয়, নিয়মিত রোদ লাগলে ত্বক প্রথমে কালো হয়, এরপর লালচে এবং চূড়ান্ত পর্যায়ে ত্বকে ফোসকা পড়ে। ফলে ত্বক জ্বালাপোড়া, ত্বক তামাটে বর্ণের হওয়া, ছোপ ছোপ দাগ পড়া, র্যাশ, বলিরেখা, ব্ল্যাক হেডস, হোয়াইট হেডসসহ বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে।

ত্বক পরিষ্কার রাখুন
প্রতিদিন ত্বক অবশ্যই ভালোভাবে পরিষ্কার করতে হবে। নয়তো রোদে পোড়া ত্বকে ধুলোবালি লেগে ব্রণের সমস্যা দেখা দিতে পারে। ত্বক পরিষ্কার করার জন্য ক্লিনজিং মিল্ক বা জেল ব্যবহার করুন।

রোদে পোড়া ত্বকের যত্ন
শাহীনা আফরিন বলেন, রোদে পোড়া ত্বকের যতেœ ঘরোয়া পরিচর্যায় উপকার পাওয়া যায়। তবে সব ধরনের ত্বকে একই ধরনের পরিচর্যা করলে সুফল পাওয়া যাবে না। রোদে পোড়া ত্বকের পরিচর্যা করতে হবে ত্বকের ধরন বুঝে। এ ক্ষেত্রে তার পরামর্শ হচ্ছেÑ

শুষ্ক ত্বক
চিনাবাদাম পেস্ট এক টেবিল চামচ, দূর্বাঘাস তিন-চারটি, হলুদের রস (হলুদ জ্বাল দিয়ে রস বের করে নিতে হবে) পেস্ট করে মুখে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। প্যাকটি সপ্তাহে দু-তিন দিন ব্যবহারে শুষ্ক ত্বকের রোদে পোড়া দাগ দূর হবে এবং ত্বক উজ্জ্বল হবে।

তৈলাক্ত ত্বক
পুদিনাপাতা পেস্ট এক চা-চামচ, বেসন এক চা-চামচ, জায়ফলের গুঁড়া এক চিমটি পেস্ট করে মুখে লাগিয়ে রাখুন। ৫-৭ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্যাকটি ত্বকের ব্যাকটেরিয়া ও তৈলাক্তভাব দূর করে ত্বককে রোদে পোড়া দাগ ও ব্রণমুক্ত করবে।

মিশ্র ত্বক
একটি ডিমের সাদা অংশ, আধা চা-চামচ আপেল সিডার ভিনেগার, এক চা-চামচ মুলতানি মাটি মিশিয়ে পেস্ট করে মুখে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। রোদে পোড়া দাগ দূরসহ ত্বক উজ্জ্বল হয়ে উঠবে।

স্বাভাবিক ত্বক
স্বাভাবিক ত্বকের রোদে পোড়া দাগ দূর করতে পাকা টমেটো খুব উপকারী। পাকা টমেটো থেকে বিচি সরিয়ে নিন। এবার টমোটোর ক্বাথের সঙ্গে এক চা-চামচ ময়দা, তিন-চার ফোঁটা ভিনেগার ও সামান্য লেবুর রস মিশিয়ে পেস্ট করে মুখে ব্যবহার করুন। ত্বকের ট্যানভাব চলে যাবে ও উজ্জ্বলতা ফিরে আসবে।

ত্বকের আরও নানাবিধ সমস্যায় বিশে
রোদে ত্বক পুড়ে জ্বালা করলে প্রথমেই ঠা-া পানির ঝাপটা দিন। তারপর এক টুকরো বরফ কাপড়ে পেঁচিয়ে মুখে চেপে চেপে লাগান। ত্বক যত দ্রুত পানি আর বরফের সংস্পর্শে আনবেন, ত্বকের ক্ষতির পরিমাণ ততই কমবে।
রোদের কারণে অনেক সময় ত্বকে কালো ছোপ ছোপ দাগ পড়ে। চোখের নিচেও কালচে ভাব হয়। এসব সমস্যা দূর করতে আলুর রস খুব উপকারী।

হাত ও পায়ের যত্ন
কেবল মুখ নয়, হাত-পা, গলা, পিঠও রোদে পুড়তে পারে। হাত, পায়ের রোদে পোড়া সমস্যা দূর করতে কাঁচা হলুদের রস জ্বাল করে ফ্রিজে রেখে দিন। সপ্তাহে তিন দিন এক কাপ মুগডাল গুঁড়া, এক কাপ ভাজা গম গুঁড়া, দুই টেবিল চামচ লেবুর রসের সঙ্গে পরিমাণমতো কাঁচা হলুদ জ্বাল করা পানি মিশিয়ে পেস্ট করে হাত ও পায়ে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে হালকা ঘষে ধুয়ে ফেলুন। হাত-পায়ের ত্বক উজ্জ্বল হবে বলে জানান রূপ বিশেষজ্ঞ ফারনাজ আলম।

ফেসিয়ালে দূর হবে সানট্যান
সানট্যানের দাগ দূর করতে নিয়মিত ফেসিয়াল করুন। এ ক্ষেত্রে অ্যালোভেরা, ফ্রুট ও শেহনাজ ফেসিয়ালে ভালো উপকার পাওয়া যায়।

সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন
সানবার্ন থেকে ত্বককে রক্ষা করতে বাইরে বের হওয়ার ২০ মিনিট আগে মুখে, ঘাড়ে পাউডার বেইজ সানস্ক্রিন লাগিয়ে নিন। পাউডার বেইজ সানস্ক্রিন বাজারে কিনতে পাওয়া যায়। সবচেয়ে ভালো হয় ঘরে তৈরি করে নিতে পারলে। আধা কাপ মুলতানি মাটি, আধা কাপ কেওলিন পাউডার, আধা কাপ শঙ্খ পাউডার এবং আধা কাপ ট্যালকম পাউডার মিশিয়ে ঘরেই তৈরি করে নিতে পারেন পাউডার বেইজ ন্যাচারাল সানস্ক্রিন। যে কোনো সানব্লক প্রডাক্ট ৩ ঘণ্টা পর্যন্ত রোদ থেকে সুরক্ষা দেয়। ৩ ঘণ্টা পর মুখ ধুয়ে নতুন করে সানস্ক্রিন লাগিয়ে নিন।

সানস্ক্রিন কিনতে সতর্কতা
সানস্ক্রিন কেনার সময় মোড়কে সানস্ক্রিনের মাত্রা উল্লেখ আছে কিনা তা দেখে নিন। আমাদের দেশের জন্য সানস্ক্রিনের মাত্রা কমপক্ষে ১৫ হওয়া বাঞ্ছনীয়।

সুরক্ষার জন্য
সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সূর্যের তাপ ত্বকের বেশি ক্ষতি করে। তাই এ সময়ের রোদ যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলুন।
ফুলহাতা পোশাক পরতে চেষ্টা করুন। শরীর যত বেশি ঢাকা থাকবে রোদের হাত থেকে রক্ষা পাবেন তত।

স্কার্ফ কিংবা ক্যাপ দিয়ে মাথা, মুখ ঢেলে নিলে ত্বকের পাশাপাশি রক্ষা পাবে আপনার চুলও।
অতিরিক্ত রোদের তাপে চোখের নিচে কালো হওয়া ছাড়াও চোখে ঝাপসা দেখতে পারেন, মাইগ্রেনের সমস্যা থাকলে তা বেড়ে যেতে পারে। তাই রোদে বের হওয়ার সময় সানগ্লাস পরে নিন।

বাইরে বের হলে সঙ্গে ছাতা রাখুন।
গরমে বেশি বেশি পানি, তাজা ফলের জুস ও তরলজাতীয় খাবার খেতে চেষ্টা করুন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত