প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জীবিত ব্যক্তির বিলাপে মৃতব্যক্তির কবরে কী শাস্তি হয়?

এসএম আরিফুল কাদের : ক্ষণস্থায়ী পৃথিবী থেকে আমাদের সবাইকে বিদায় নিতে হবে। কার বিদায় কখন হবে ঠিক বলা যায় না। তবে মৃত্যু সবাইকে পাকড়াও করবে। এই মৃত্যুর মিছিলে কারও ডাক হবে আগে এবং কারো হবে পরে। তবে আমাদের আত্মীয়-স্বজনের মৃত্যু হলে ধৈর্যের পরীক্ষা দিতে হবে। কিন্তু অনেকে তা না করে চিৎকার করে, কান্নাকাটি করে, বুক চাপড়ায়, বিলাপ ইত্যাদি করে। অথচ এরূপকারীর জন্য হুঁশিয়ারি বাণী ও ভয়াবহ শাস্তির কথা রয়েছে।
মৃতের জন্য বিলাপ করে কান্নাকাটি করায় নবিজী (সা.) কঠোর হুশিয়ারী করেছেন। হজরত আয়েশা (রা.) বলেন, আব্দুল¬াহ ইবন মাসউদ (রা.) থেকে বর্ণিত। রাসূল¬ (সা.) বলেছেন,‘যারা (মৃতব্যক্তির জন্য শোকপ্রকাশে) গাল চাপড়ায়, জামার বুক ছিঁড়ে ফেলে এবং জাহেলিয়াত যুগের মতো চিৎকার দিয়ে কাঁদে, তারা আমাদের দলভুক্ত নয়।’ (সহিহ বোখারী : ১২৯৪)

মানুষ যখন মারা যায় তখন তার জন্য যেমন করণীয় রয়েছে, তেমনি বর্জনীয়ও রয়েছে। অতএব বর্জনীয়ের মধ্যে অন্যতম হলো মৃত ব্যক্তির জন্য বিলাপ করা। যা ইসলামে হারাম ঘোষণা করেছে। তাই বিলাপকারী নারী-পুরুষের জন্য রয়েছে ভয়াবহ শাস্তি। হাদিসের ভাষায়, হজরত আবু মালিক আশ‘আরী (রা.) থেকে বর্ণিত, নবিজী (সা.) বলেছেন, আমার উম্মতের মধ্যে জাহেলিয়াত বিষয়ের চারটি জিনিস রয়েছে। যা তারা ত্যাগ করছে না। আর তা হলো বংশমর্যাদা নিয়ে গর্ব, অন্যের বংশের প্রতি কটাক্ষ, গ্রহ-নক্ষত্রের মাধ্যমে বৃষ্টি প্রার্থনা এবং মৃতদের জন্য বিলাপ করা। রাসূল (সা.) আরো বলেন, বিলাপকারী যদি তার মৃত্যুর পূর্বে তাওবা না করে। তবে কিয়ামতের দিনে তাকে দাঁড় করানো হবে আলকাতরার আবরণ এবং খোস-পাঁচড়ার পোশাক দিয়ে।’ (সহিহ মুসলিম : ৯৩৪)

বিলাপ করে কান্নায় ইসলামে কোনো ফায়দা না থাকায় বিলাপকারীকে এ সম্পর্কিত কোনো কাজে সহযোগিতাও পাপ। কেননা, হাদিসে এসেছে- ইসহাক (রহ.) আনাস (রা.) থেকে বর্ণনা করেন যে, রাসুলুল¬াহ (সা.) মহিলাদের বায়আত করার সময়ে অঙ্গীকার নিয়েছিলেন যে, তারা মৃতের জন্য বিলাপ করবে না। তখন তারা বললো, ইয়া রাসুলাল¬াহ (সা.)! মহিলারা জাহেলি যুগে মৃতের জন্য বিলাপে আমাদের সহযোগিতা করত। এখন আমরা কী মৃতের জন্য বিলাপে তাদের সহযোগিতা করব না? রাসুলুল¬াহ (সা.) বললেন, ইসলামে মৃতের জন্য বিলাপে কোন সহযোগিতা নেই। (মিশকাত শরিফ : ২৯৪৭)

মৃতব্যক্তির উচিত জীবদ্দশায় আত্মীয়-স্বজনকে ডেকে বিলাপ করে কান্না করা থেকে বিরত থাকতে বলা। যার প্রমাণ মেলে এই হাদিস থেকে। মুহাম্মাদ ইবনু আব্দুল আ’লা (রহ.) হাকিম ইবনু কায়স (রহ.) থেকে বর্ণিত যে, কায়স ইবনু আসিম (রা.) বলেছেন, তোমরা আমার জন্য বিলাপ করবে না। কেননা রাসুল (সা.)-এর ওফাতের পর বিলাপ করা হয়নি। (সহিহ নাসাঈ :১৮৫৪)

অন্য হাদিসে পাওয়া যায়, নবিজী (সা.) বলেন, মৃত ব্যক্তিকে তার জন্য কৃত বিলাপের বিষয়ের ওপর কবরে আজাব দেওয়া হয়। (সহিহ বোখারী : ১২১৫)

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ