প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

একনজরে শিক্ষার্থীদের সাড়া জাগানো কিছু স্লোগান

লিহান লিমা: স্কুল, প্রাইভেট, কোচিং, বাসা, হোম্ওয়ার্ক, এর ফাঁকে বাবা-মাকে ফাঁকি দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঢুঁ। এই  প্রজন্মের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল অনেক। কিন্তু সহপাঠীর মৃত্যুতে গর্জে ্ওঠা এই প্রাণগুলো বহন করছে অনেক ক্ষোভ। আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে সব অনাচার-অসাম্য। এ  যেন কবি সুকান্তের আঠারোরই প্রতিধ্বনি।

‘আঠারো বছর বয়স কী দুঃসহ, র্স্পধায় নেয় মাথা তোলবার ঝুঁকি

 

‘আঠারো বছর বয়সেই অহরহ, বিরাট দুঃসাহসেরা দেয় যে উঁকি ‘

 

‘আঠারো বছর বয়সের নেই ভয় পদাঘাতে চায় ভাঙতে পাথর বাধা’

 

এ বয়সে কেউ মাথা নোয়াবার নয়- আঠারো বছর বয়স জানে না কাঁদা।

 

‘এ বয়স জানে রক্তদানের পুণ্য, বাষ্পের বেগে স্টিমারের মতো চলে’

 

‘প্রাণ দেওয়া-নেওয়া ঝুলিটা থাকে না শূন্য, সঁপে আত্মাকে শপথের কোলাহলে’

 

‘আঠরো বছর বয়স ভয়ঙ্কর, তাজা তাজা প্রাণে অসহ্য যন্ত্রণা,’

 

এ বয়সে প্রাণ তীব্র আর প্রখর, এ বয়সে কানে আসে কত মন্ত্রণা।

 

আঠারো বছর বয়স যে দুর্বার, পথে প্রান্তরে ছোটায় বহু তুফান

 

দুর্যোগে হাল ঠিক মতো রাখা ভার, ক্ষত-বিক্ষত হয় সহস্র প্রাণ।

 

আঠারো বছর বয়সে আঘাত আসে, অবিশ্র্রান্ত; একে একে হয় জড়ো,

 

এ বয়স কালো লক্ষ দীর্ঘশ্বাসে, এ বয়স কাঁপে বেদনায় থরোথরো।

 

তব আঠারোর শুনেছি জয়ধ্বনি, এ বয়স বাঁচে দুর্যোগে আর ঝড়ে,

 

বিপদের মুখে এ বয়স অগ্রণী, এ বয়স তবু নতুন কিছু তো করে।

 

এ বয়স জেনো ভীরু, কাপুরুষ নয়, পথ চলতে এ বয়স যায় না থেমে,

 

এ বয়সে তাই নেই কোনো সংশয়- এ দেশের বুকে আঠারো আসুক নেমে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ