প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সোশ্যাল মিডিয়ায় যে ৭টি আচরণ গোপন পরকীয়ার লক্ষণ!

ডেস্ক রিপোর্ট : বর্তমানে বাস্তব জীবনের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলো। বিশেষ করে ফেসবুক থেকেই বাস্তবে গড়ায় অনেক ভালোবাসার সম্পর্ক। একই কারণে ফেসবুক এখন পরকীয়ার প্ল্যাটফর্ম হিসেবেও কাজ করে বটে! একজন মানুষ পরকীয়া করছেন কিনা বা একই সময়ে একাধিক মানুষের সাথে প্রেম করছেন কিনা তা বোঝা যায় অনলাইনে তার কিছু আচরণ দেখলেই।  আপনার সঙ্গীর মাঝেও এমন আচরণ দেখা যাচ্ছে না তো?

১) তার সাথে বিশেষ একজন মানুষের ছবি ট্যাগ করা হয় সব সময়েই

আপনার স্বামীর সাথে কোনো নারী প্রায়শই ছবি দিচ্ছেন এবং তাকে ট্যাগ করছেন। অথবা আপনার স্ত্রী নিজের ছবিতে কোনো পুরুষকে অহরহ ট্যাগ করছেন। ফেসবুক বা ইনস্টাগ্রামে এমন ঘটনা দেখলে তা পরকীয়ার লক্ষণ বলেই ধরে নেওয়া যায়।  শুধু ছবি নয়। ইন্টারনেটে ইদানিং বিভিন্ন মজাদার ছবি তথা ‘মিম’ প্রচলিত। এসব মিমেও যদি তারা একে অপরকে ক্রমাগত ট্যাগ করে তাহলে বুঝতে হবে তাদের মাঝে গোপন কিছু চলছে।

২) ফেসবুকে রিলেশনশিপ স্ট্যাটাস লুকানো

প্রেম করার সময়ে অনেকেই বিভিন্ন কারণে রিলেশনশিপ স্ট্যাটাস লুকিয়ে রাখেন। কিন্তু বিয়ের পর তা হিডেন রাখা হলে খটকা লাগাটাই স্বাভাবিক।  বিশেষ করে আপনার স্বামী বা স্ত্রীয়ের রিলেশনশিপ স্ট্যাটাস আপনার কাছে হিডেন রাখাটা মোটেই স্বাভাবিক নয়।

৩) তারা একই ব্যক্তিকে রিটুইট করেন অহরহ

টুইটারে এক লাইন কথার মাঝেই লুকিয়ে থাকে অনেক অর্থপূর্ণ ইঙ্গিত। আপনার সঙ্গী যদি বিশেষ একজন মানুষের টুইটকেই বারবার রিটুইট করেন তেমন কোনো কারণ ছাড়াই, তাহলে এ বিষয়ে আপনি সন্দেহ করতেই পারেন।

৪) আপনার সাথে ট্যাগ হওয়াটা তিনি পছন্দ করেন না

অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের স্বামী বা স্ত্রীর সাথে বেশি বেশি ছবি বা স্ট্যাটাস দেওয়া পছন্দ করেন না। কিন্তু আপনি সঙ্গীকে ট্যাগ করে পাবলিক পোস্ট বা ছবি দিলে তিনি যদি খুব রাগারাগি করেন, ছবি বা পোস্ট দিতে গিয়ে যদি দেখেন তাদেরকে ট্যাগ করার অপশন নেই, তা কিন্তু স্বাভাবিক নয়। দেখে মনে হতেই পারে, তিনি অনলাইনে আপনার সঙ্গী হিসেবে পরিচিত হতে চান না। হয়তো তার পরকীয়া আছে বলেই এমন আচরণ করছেন।

৫) হোয়াটসঅ্যাপে সন্দেহজনক আচরণ

হোয়াটসঅ্যাপে কারও সাথে চ্যাট করার পর ক্লিয়ার করে দিলে কী কথা হয়েছিল তা দেখা যায় না বটে, কিন্তু ওই মানুষটির সাথে কথা হয়েছিল তা দেখা যায়। আপনি যদি দেখেন, আপনার সঙ্গীর সাথে একজন মানুষের অনেক কথা হয়, কিন্তু সেই কনভারসেশনে কোনো কথা নেই, তাহলে ধরে নিতে পারেন তারা এমন কোনো কথা বলেছিল যা আপনার থেকে লুকানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।  এ বিষয়টি নিয়ে আপনার ভাবা উচিৎ।

৬) তিনি প্রায়ই ‘একা’ বেড়াতে যান

সঙ্গী অফিসিয়াল কারণে, ব্যবসার কারণে বা যে কারণেই হোক, একা একা বিভিন্ন জায়গায় যান এবং কিছুদিন কাটিয়ে আসেন। কিন্তু ‘একা’ বেড়াতে গেলেও সবসময়ে কেউ একজন তার সিঙ্গেল ছবি তুলে দেন। এমনকি বিভিন্ন রোমান্টিক লোকেশনে (সমুদ্র সৈকত বা রিসোর্ট) কেউ একজন তাদের ছবি তুলে দেয়। বিষয়টি সন্দেহজনক নয় কী?

৭) তার ছবিতে দুইটি পানীয়, দুইটি খাবারের প্ল্যাটার, দুইটি আইসক্রিম দেখা যায়

স্বামী বা স্ত্রী আপনাকে নিয়ে খেতে যায়নি। হয়ত তিনি কলিগ বা বন্ধুদের সাথে খাওয়ার কথা বলে বের হয়েছেন। অথচ ছবিতে দেখা যায় তার সামনে মাত্র দুইটিই প্লেট বা গ্লাস। তাহলে কী তার সাথে বিশেষ কেউ রয়েছেন? এটা বোঝার একটি সহজ উপায় হলো লোকেশন। তিনি যদি খুব রোমান্টিক কোনো রেস্টুরেন্টে গিয়ে থাকেন, তাহলে বুঝে নিন তিনি বন্ধুদের সাথে নয়, অভিসারেই সেখানে গিয়েছেন।

৮) ফোনের ব্যাপারে অতিরিক্ত সাবধানতা

অনেকেই বাথরুমে পর্যন্ত ফোন নিয়ে যান। এটা কারও অভ্যাস হতে পারে। বা আপনার থেকে ফোন লুকানোর চেষ্টাও হতে পারে। হয়তো তার ফোনে এমন কিছু রয়েছে যা তিনি আপনাকে দেখাতে চান না। তিনি যদি ফোন সবসময় লক রাখেন এবং কখনোই আপনার সামনে ফোন রেখে অন্য কোথাও না যান, তাহলে সন্দেহ করতেই পারেন। – প্রিয়.কম

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত