প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হাওর রক্ষা বাঁধ নির্মাণে মাটির বদলে বালি!

নুর উদ্দিন, ছাতক (সুনামগঞ্জ): হাওরের বোরো ফসল রক্ষায় বাঁধ নির্মাণে মাটির বদলে ব্যবহার করা হয়েছে বালি।

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার শনি হাওর উপ-প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি ও সদস্য সচিবের অনিয়ম ও দুর্নীতির লিখিত অভিযোগ করেছেন স্থানীয় কৃষকরা তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট।

জানা যায়, এ প্রকল্পে প্রায় সাড়ে চার লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি-সদস্য সচিব স্থানীয় যুবলীগ নেতা হওয়ায় যেন তেন ভাবে বাঁধের কাজ করেই বরাদ্দকৃত অর্থ লুটপাটের পায়তারা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে স্থানীয় কৃষকদের অভিযোগ।

বোরো ফসল রক্ষার বেড়ি বাঁধ নির্মাণের শুরুতেই পুকুর চুরির মত অভিযোগে মঙ্গলবার সরজমিনে বাঁধ নির্মাণ এলাকা পরিদর্শণ করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

কৃষকরা জানান, এ বাঁধ স্বাভাবিক পানির প্রবাহেই ভেঙ্গে হাওরের ফসল ডুবির আশংকা রয়েছে।

কৃষকরা জানান, উপজেলার আনোয়ারপুর বাজারের দক্ষিণ দিকে বিগত মৌসুমে পাহাড়ি ঢল ও আগাম বন্যায় সৃষ্ট ভাঙ্গা অংশে মাটির পরিবর্তে বালি দিয়ে বাঁধ তৈরি করা হচ্ছে। এমনকি বাঁধের নিকট থেকেই বালি তুলে দায়সারা ভাবে বাঁধ নির্মাণ নির্দেশনা ও নীতিমালা পরিপন্থীভাবে বাঁধ নির্মান কাজ চলছে।

উপজেলার আনোয়ারপুরের কৃষক আলীম উদ্দিন জানান, নীতিমালা ও নির্দেশানা অনুয়ায়ী হাওরের বাঁধ নির্মাণের ক্ষেত্রে বাঁধে কমপক্ষে ৭০ ভাগ মাটি থাকতে হবে সেই সাথে নির্মাণাধীন বাঁধ থেকে অন্তত ৫০ ফুট দূর থেকে মাটি সংগ্রহ করতে হবে। কিন্তু আনোয়ারপুর বাজারের বাঁধের কাজে বাঁধ নির্মাণের কোন ধরনের নির্দেশনা না মেনেই প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি গাঁয়ের জোরে দায়সারাভাবে বাঁধের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি সামায়ুন কবির বলেন, মাটি না পাওয়ায় বালি দিয়ে বাঁধের কাজ করা হয়েছে।

তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূর্নেন্দু দেব জানান, নির্দেশনা পরিপন্থী বালি দিয়ে বাঁধ তৈরি করার কারনে তাদেরকে শোকজ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এবার বাঁধ নিয়ে কেউ অনিয়ম দুর্নীতি করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত