প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফেসবুক বন্ধ করাই প্রশ্ন ফাঁস বন্ধের সমাধান নয়

সজিব খান: সাম্প্রতিক সময়ে ফেসবুকের মাধ্যমে স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন সরকারি ব্যাংক ও প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ পরিক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার ঘটনা ঘটায় পরিক্ষার সময়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফেসবুক ও টুইটার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সরকারের এ ধরনের উদ্দ্যোগের ব্যপারে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থী প্রতিনিধি কিছু যুক্তিসংগত এবং শিক্ষামূলক মতামত দিয়েছেন। তার মতে, ফেসবুক বন্ধ করাই প্রশ্ন ফাঁস বন্ধের সমাধান নয়।

আমরা ওই শিক্ষার্থীর নাম প্রকাশ করতে পারছি না। তবে তার দেওয়া মতামত পাঠকদের জানানোর উদ্দেশ্যে নিচে তুলে ধরছি-

প্রতিবেদক: ফেসবুক বন্ধ করার ব্যাপারে আপনার মন্তব্য কী?

শিক্ষার্থী: বাংলাদেশে ফেসবুক বন্ধ হওয়ার ঘটনা নতুন কিছু নয়। বিভিন্ন কারণে একাধিকবার ফেসবুক বন্ধ করা হয়েছে। ২০১৫ সালের নভেম্বরে আইনশৃঙ্খলা অবনতি হওয়ার শঙ্কায় ফেসবুক বন্ধ করেছিল সরকার। কিন্তু ফেসবুক যখনই বন্ধ হয়েছে, তখনই এর ব্যবহারকারীরা বিকল্প পথ বের করেছে।

প্রতিবেদক: ফেসবুক বন্ধ করলেই প্রশ্ন ফাঁস বন্ধ হয়ে যাবে কী?

শিক্ষার্থী: না, ফেসবুক বন্ধ করলেই প্রশ্ন ফাঁস বন্ধ হয়ে যাবে না, এটা বোঝানোর মতো রাষ্ট্রে কেউ নেই। হোয়াটসআপ, ভাইবারেও তো ফাঁস হওয়া প্রশ্ন পাঠানো যায়। এছাড়া আমরা সকলেই জানি যে, সবগুলো বন্ধ করে দেওয়া হলেও প্রক্সি ব্রাউজার বন্ধ করা সম্ভব হয়তো হবে না। আর এই সুযোগটাকে যে প্রশ্ন ফাঁস চক্রের সদস্যরা কাজে লাগাবে না, তার গ্যারান্টি কে দেবে?

প্রতিবেদক: প্রশ্ন ফাঁস বন্ধ করতে ফেসবুক বন্ধ রাখা কতটুকু যুক্তিসংগত ?

শিক্ষার্থী: প্রশ্ন ফাঁস প্রতিরোধ করতে ফেসবুক বা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো বন্ধ করে দেওয়া কোনো কাজের কথা নয়। যারা প্রশ্ন ফাঁস করছে, তাদের আগে আইনের আওতায় আনা জরুরি। তাদের আইনের আওতায় নিয়ে না এলে এই প্রশ্ন ফাঁস কখনোই বন্ধ করা সম্ভব হবে না। অপরাধীদের না ধরে ফেসবুক বন্ধ করে দিয়ে কোনো ফল পাওয়া সম্ভব হবে বলে আমার মনে হয় না।

মাথাব্যথা করলে মাথা কেটে ফেলাটা সমাধান নয়, এটা সবাই বোঝে এখন। তাহলে শিক্ষা মন্ত্রাণালয় এটা কেন বুঝছে না?

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত