শিরোনাম
◈ বিএনপিতে শুদ্ধি অভিযান শুরু, সরকারের সঙ্গে আঁতাতের অভিযোগে ফেঁসে যাচ্ছেন শতাধিক নেতা  ◈ তুরস্কে কন্ট্রাক্ট ফার্মিংয়ে বাংলাদেশি কৃষিবিদ ও কৃষক নিয়োগের প্রস্তাব  ◈ ফুটপাত থে‌কে জ্বলন্ত চুলা ও সিলিন্ডার সরা‌লো পু‌লিশ, আটক ৮  ◈ প্রধানমন্ত্রীকে বড়পীর আব্দুল কাদের জিলানীর (র.) মাজার জিয়ারতের আমন্ত্রণ ◈ রাজধানীজুড়ে রেস্তোরাঁয় পুলিশি অভিযান, আটক ৩৫ ◈ প্রবাসী আয়ে চমক, ৮ মাসে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স ফেব্রুয়ারিতে ◈ রমজানে সৌদি আরবে মাইক ব্যবহার ও সম্প্রচার সীমিত করে ৯ দফা নির্দেশনা ◈ পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ ◈ বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ড হাইকোর্টে রিট দায়ের ◈ গাজায় মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ বন্ধে ঐক্যবদ্ধ উদ্যোগের আহবান বাংলাদেশের

প্রকাশিত : ০৪ ডিসেম্বর, ২০২৩, ০৫:১৬ বিকাল
আপডেট : ০৫ ডিসেম্বর, ২০২৩, ০৬:১৩ সকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

শ্রম অধিকারের অগ্রগতি শিগগিরই যুক্তরাষ্ট্রকে জানানো হবে

কারও দয়ায় নয়, কম দামে দিতে পারাতেই পণ্য রপ্তানি হচ্ছে: বাণিজ্য সচিব

সোহেল রহমান: [৩] বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ বলেছেন, বাংলাদেশের শ্রম আইন ও শ্রমিক অধিকার নিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশকিছু দেশের কিছু চাওয়া বা শর্ত ছিল। যুক্তরাষ্ট্র চায় সবদেশের শ্রম পরিস্থিতি আরও উন্নত হোক। আমরা সেটাকে গুরুত্ব দিচ্ছি।

[৪] শ্রম আইন ও বেজা আইনে মার্কিন যে চাওয়া ছিল তা অনেকটাই পূরণ করা হয়েছে এমন দাবি করে তিনি বলেন, গত কয়েক বছরে ৩ বার শ্রম আইন সংশোধন করা হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের যেসব বক্তব্য বা তাদের যা চাওয়া ছিল, সেগুলো পূরণ করার জন্যই এ সংস্কার বা আইনের পরিবর্তনগুলো আনা হয়েছে। 

[৫] সোমবার সচিবালয়ে ‘শ্রম অধিকার সংক্রান্ত জাতীয় কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নের অগ্রগতি পর্যালোচনা সংক্রান্ত’ বিশেষ আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে বাণিজ্য সচিব সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। 

[৬] বেপজা আইনের সংশোধন নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্য সচিব বলেন, ২০২৫ সালের জুনের মধ্যে বেপজা আইন সংশোধন করা হবে। অংশীজন যারা আছেন, বিদেশি বিনিয়োগকারী সবার সঙ্গে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে কী করা হবে। ইতোমধ্যে বেপজা আইনে অনেকগুলো সংশোধন আনা হয়েছে। 

[৭]  সভায় কর্মক্ষেত্রে শ্রমমান পরিস্থিতি, শ্রম আইন বাস্তবায়ন অগ্রগতি, শ্রম অধিকার ও নায্য মজুরি পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে জানিয়ে বাণিজ্য সচিব বলেন, ন্যূনতম মজুরি ঘোষণা হয়েছে, আগামী জানুয়ারি থেকে কার্যকর হবে। এ ছাড়া আরও কী করে শ্রমিক কল্যাণ বাড়ানো যায়, সে লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার। 

[৮] তিনি বলেন, আগেও বলেছি, শ্রম ইস্যুতে বাংলাদেশের বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা দেয়ার মতো কোনো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। এ ধরনের সিদ্ধান্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নেবে বলে মনে করি না। 

[৯] প্রসঙ্গক্রমে তিনি বলেন, কারও দয়ায় নয়, আন্তর্জাতিক চাহিদা ও শ্রমিক অধিকার রক্ষা করে মানসম্পন্ন পণ্য কম দামে দিতে পারার কারণেই বাংলাদেশের পণ্য রপ্তানি হচ্ছে। আমরা প্রায় ২০০ দেশে পণ্য রপ্তানি করি। ইউরোপীয় ইউনিয়নে আমরা ২৫ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি করি, সেটা শুল্কমুক্ত সুবিধার আওতায়। আর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় ১০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি করি, কিন্তু সেখানে কোনো শুল্কমুক্ত সুবিধা পাওয়া যায় না। 

[১০] বাণিজ্য সচিব বলেন, আমাদের রপ্তানি বাজার যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সে জন্য যা যা করণীয় তা করবো স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে নিয়ে। 

[১১] সভায় শ্রম সচিব মোঃ এহছানে এলাহী, এফবিসিসিআই সভাপতি মো. মাহবুবুল আলম, বিজিএমইএ’র সভাপতি মো. ফারুক হাসান, বিকেএমইএ’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোহাম্মদ হাতেমসহ পররাষ্ট্র এবং শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়-এর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সম্পাদনা: ইকবাল খান

এসআর/আইকে/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়