শিরোনাম
◈  সরকার থেকে বরাদ্দ করলে সংসদ সদস্যদের গাড়ি আমদানির প্রয়োজন নেই: সংসদে আলোচনা ◈ ঈদে যানজট এড়াতে ডিএমপির ২২ নির্দেশনা ◈ ব্রিকসকে দেওয়ার মতো অনেক কিছু রয়েছে বাংলাদেশের: ডা. দীপু মনি ◈ পল্টনে ফাইন্যান্স টাওয়ারের আগুন নিয়ন্ত্রণে ◈ নেপিয়ার ঘাস খেয়ে মারা গেলো খামারের ২৬ গরু ◈ এমপি আনার হত্যা তদন্তে কোনো চাপ নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ তারেক রহমানসহ পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী ◈ সাধারণ নাগরিকের মতো করেই ড. ইউনূসের বিচার হচ্ছে: আইনমন্ত্রী ◈ ড. ইউনূসের কথা অসত্য, জনগণের জন্য অপমানজনক: আইনমন্ত্রী ◈ সরকারের ব্যাংকঋণে বেসরকারিখাতে বিনিয়োগ ব্যাহত হবে: সিপিডি

প্রকাশিত : ১০ জুন, ২০২৪, ১০:১৬ রাত
আপডেট : ১১ জুন, ২০২৪, ১১:৫৯ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

৩৭ হাজার ৮১৭ কোটি ৪১ লাখ টাকার সম্পূরক বাজেট পাস 

সোহেল রহমান: [২] বিদায়ী ২০২৩-২৪ অর্থবছরের জন্য৭ লাখ ১৪ হাজার ৪১৮ কোটি টাকার সংশোধিত বাজেট পাস হয়েছে। মূল বাজেটে ৬২টি মন্ত্রণালয়/বিভাগের অনুকূলে মোট বরাদ্দের পরিমাণ ছিল ৭ লাখ ৬১ হাজার ৭৮৫ কোটি টাকা। সংশোধিত প্রস্তাবে ৪৭ হাজার ৩৬৭ কোটি টাকা কাটছাঁট করা হয়েছে।  

[৩] সোমবার অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান ম্হামুদ আলী জাতীয় সংসদে ‘নির্দিষ্টকরণ (সম্পূরক) বিল-২০২৪’ উত্থাপন করেন। সংসদে আলোচনার পরে বিলটি কণ্ঠভোটে পাস হয়। 

[৪] উপস্থাপিত বিলে ২২টি মন্ত্রণালয়/বিভাগের জন্য ৩৭ হাজার ৮১৭ কোটি ৪০ লাখ ৫৭ হাজার টাকার সম্পূরক বাজেট বা অতিরিক্ত বরাদ্দ অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সম্পূরক বাজেটে সর্বোচ্চ ১২ হাজার ৬৪৯ কোটি ৩৩ লাখ ৬৮ হাজার টাকা পেয়েছে পরিকল্পনা বিভাগ। আর সর্বনিম্ন ১৪ কোটি ২৬ লাখ ৬০ হাজার টাকা পেয়েছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ।

[৫] প্রসঙ্গত: সরকারের যেসব মন্ত্রণালয় বা বিভাগ তাদের মূল বরাদ্দের থেকে বেশি ব্যয় করেছে সেগুলোর অনুমোদন প্রদানে সম্পূরক বাজেট পাস করা হয়। 

[৬] অন্যদিকে ৪০টি মন্ত্রণালয়/বিভাগের বাজেট বরাদ্দ অপরিবর্তিত রয়েছে বা হ্রাস পেয়েছে। 

[৭] সম্পূরক বাজেটের ওপর আলোচনায় ২০টি দাবির বিপরীতে চারজন সংসদ সদস্য ৬৬টি ছাঁটাই প্রস্তাব দেন। এর মধ্যে দুটি মঞ্জুরি দাবির ওপর ছাঁটাই প্রস্তাবের আলোচনা হয়। সে দু’টি হচ্ছেÑ অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ। পরে সেগুলো কণ্ঠভোটে বাতিল হয়ে যায়।

[৮] সংশোধিত বাজেটে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ও বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচী (এডিপি)-তে বরাদ্দও কাটছাঁট করা হয়েছে। অন্যদিকে ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে সরকারের ঋণ গ্রহণ লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় বেড়েছে, বেড়েছে সুদ পরিশোধে ব্যয়।   

[৯] মূল বাজেটে মোট রাজস্ব প্রাপ্তির লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৫ লাখ কোটি টাকা। এর মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)-এর আওতাধীন রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৪ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা। সংশোধিত বাজেটে এনবিআর-এর আওতাধীন রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা কমিয়ে ৪ লাখ ১০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর বিপরীতে বিদায়ী অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে (জুলাই ২০২৩-মার্চ ২০২৪) রাজস্ব আদায় হয়েছে ২ লাখ ৪৯ হাজার ৪০৭ কোটি টাকা।  

[১০] বিদায়ী অর্থবছরে সরকারের ব্যয় কম হওয়ার কারণে বাজেট ঘাটতি কমেছে। মূল বাজেটে সার্বিক ঘাটতির পরিমাণ ছিল ২ লাখ ৫৭ হাজার ৮৮৫ কোটি টাকা (জিডিপি’র ৫.২ শতাংশ)। সংশোধিত বাজেটে এর পরিমাণ ২ লাখ ৩২ হাজার ৯১৮ কোটি টাকা (জিডিপি’র ৪.৬ শতাংশ) দেখানো হয়েছে।  

[১১] এদিকে বাজেট ঘাটতি কমলেও ঘাটতি পূরণে ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে লক্ষ্যমাত্রার অধিক ঋণ নেয়া হয়েছে। এ খাতে লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ১ লাখ ৩২ হাজার ৩৯৫ কোটি টাকা। এর বিপরীতে নেয়া হয়েছে ১ লাখ ৫৫ হাজার ৯৩৫ কোটি টাকা। 

[১২] অন্যদিকে বৈদেশিক উৎস থেকে নীট ১ লাখ ২ হাজার ৪৯০ কোটি টাকা লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ঋণ নেয়া হয়েছে ৭৬ হাজার ২৯৩ কোটি টাকা। অর্থাৎ বৈদেশিক উৎস থেকে লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় কম ঋণ নেয়া হয়েছে।

[১৩] মূল বাজেটে দেশি ও বিদেশি ঋণের সুদ পরিশোধের লক্ষ্যমাত্রা ছিল যথাক্রমে ৮২ হাজার কোটি টাকা এবং ১২ হাজার ৩৭৬ কোটি টাকা। এর বিপরীতে দেশি ও বিদেশি ঋণের সুদ পরিশোধ করা হয়েছে যথাক্রমে ৮৯ হাজার ৫০০ কোটি টাকা এবং ১৫ হাজার ৮০০ কোটি টাকা। 

[১৪] চলতি ২০২৩-২৪ অর্থবছরের মূল বাজেটে এডিপি’র আকার ছিল ২ লাখ ৬৩ হাজার কোটি টাকা। সংশোধিত বাজেটে এডিপি’র আকার দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৪৫ হাজার কোটি টাকা। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব

এসবি২

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়