শিরোনাম
◈ সরকার সংবাদপত্রের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করে না: আইনমন্ত্রী ◈ জনগণের আস্থা অর্জন করলে ভোট পাবেন: জনপ্রতিনিধিদের প্রধানমন্ত্রী ◈ ফিলিস্তিনের বিপক্ষে অপতথ্য ছড়ানো প্রতিরোধে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে হবে: তথ্য প্রতিমন্ত্রী ◈ পিলখানা মামলার বিচারে গাফিলতি নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির তদন্ত প্রতিবেদন পেছাল ◈ মাতৃগর্ভের সন্তানের পরিচয় প্রকাশ করা যাবে না: হাইকোর্ট  ◈ গ্রামীণ টেলিকমসহ তার প্রতিষ্ঠানগুলোর লভ্যাংশ কাউকে দেয়া যায় না: ড. ইউনূস   ◈ মুখ খুলে মানুষ গণতন্ত্রের কথা বলতে পারছে না: ড. ইউনূস  ◈ স্বাস্থ্যসেবা বিকেন্দ্রীকরণ শুরু হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ◈ রমজানের আগেই দাম বাড়লো চিনি, ছোলা, ডাল ও সবজির

প্রকাশিত : ২২ নভেম্বর, ২০২৩, ০৫:০০ বিকাল
আপডেট : ২২ নভেম্বর, ২০২৩, ০৫:০০ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

বিরতির পর আমাদের আঙুল থাকবে বন্দুকের ট্রিগারে: হামাস

সাজ্জাদুল ইসলাম: [২] প্রস্তাবিত ৪ দিনের যুদ্ধবিরতির পর ফের গাজা উপত্যকায় যুদ্ধ শুরুর ঘোষণা দিয়েছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। প্রায় একই ধরণের হুংকার দিয়েছে উপত্যকার নিয়ন্ত্রণকারী ফিলিস্তিনের স্বাধীনতার জন্য লড়াইরত ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসও। সূত্র: দ্য ন্যাশনাল

[৩] বুধবার এক বিবৃতিতে হামাসের হাইকমান্ডের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘আমরা যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব দিয়েছি, সেই সঙ্গে নিশ্চিত করছি যে বিরতি শেষ হওয়ার পর আমাদের আঙুল থাকবে বন্দুকের ট্রিগারে এবং আমাদের অকুতোভয় যোদ্ধারা অবশ্যই দখলদারি শক্তিকে পরাজিত করে গাজার জনগণকে রক্ষা করবে।’

[৪] গত সপ্তাহে কাতার এবং মিসরের মধ্যস্থতার ভিত্তিতে ইসরায়েলের কাছে যুদ্ধবিরতির একটি প্রস্তাব পাঠিয়েছিল কাতারে অবস্থানরত হামাসের হাইকমান্ড। সে প্রস্তাবে বলা হয়েছিল, যদি ইসরায়েল গাজা উপত্যকায় চার দিনের যুদ্ধবিরতি, কারাগারে বন্দি ফিলিস্তিনিদের মুক্তি, উপত্যকায় ত্রাণপণ্যবাহী ট্রাকগুলোকে প্রবেশ করতে দেয় এবং আহত বেসামরিকদের উপত্যকার বাইরে গিয়ে চিকিৎসা গ্রহণের অনুমতি দেয় তাহলে নিজেদের হাতে থাকা জিম্মিদের মধ্যে ৫০ জনকে মুক্তি দেবে হামাস।

[৫] ইসরায়েল প্রথমে এই প্রস্তাব মানতে চায়নি, তবে সেখানকার জনগণ ও জিম্মিদের পরিবারের সদস্যদের চাপে মঙ্গলবার এক জরুরি বৈঠকে প্রস্তাবে সায় দিয়েছে ইসরায়েলের যুদ্ধকালীন মন্ত্রিসভা। বৈঠক শেষে এক বক্তৃতায় নেতানিয়াহু বলেন, ‘আমরা একটি যুদ্ধের মধ্যে রয়েছি এবং যতদিন আমাদের লক্ষ্য পূরণ না হয়, ততদিন এই যুদ্ধ চলবে।’ তার সেই বক্তব্যের জবাবে এ বিবৃতি দিয়েছে হামাস।

[৬] গত ৭ অক্টোবর ভোরে ইসরায়েলে অতর্কিত হামলা চালায় হামাসের যোদ্ধারা। হামাসের এ আক্রমনে ১২০০ ইসরায়েলি নিহত এবং  জিম্মি হিসেবে আটক হয় আরও ২৪২ জন। হামাসের এই হামলার জবাবে ৭ অক্টোবর থেকেই গাজায় অভিযান শুরু করে ইসরায়েলি বাহিনী। টানা দেড় মাসের ইসরায়েলি হামলায় অন্তত ১৪ হাজার ১০০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। যাদের বেশির ভাগই শিশু ও নারী।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়