শিরোনাম
◈ সরকারের কাছে 'আট দফা দাবি' কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের ◈ শুক্রবারের সহিংসতায় ঢাকায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩২ জনে ◈ এটা অবশ্যই কারফিউ, এটা নিয়ম অনুযায়ীই হবে এবং সেটা শুট অ্যাট সাইট হবে: ওবায়দুল কাদের ◈ কারফিউ’র পরিপত্র জারি ◈ কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা কোটা আন্দোলনকারীদের ◈ ওবায়দুল কাদের কারফিউ জারি প্রসঙ্গে যা বললেন ◈ সারা দেশে কারফিউ জারি, সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত ◈ নরসিংদীর কারাগারে হামলার পর বের হয়ে গেছে কয়েকশ কয়েদি ◈ বাংলাদেশে সহিংসতা ও মৃত্যুর ঘটনায় জাতিসংঘের উদ্বেগ ◈ রাজধানীর উত্তরা, মোহাম্মদপুর, বাড্ডাসহ বিভিন্ন এলাকায় আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ

প্রকাশিত : ২৮ মার্চ, ২০২৩, ০৮:৪৫ রাত
আপডেট : ২৯ মার্চ, ২০২৩, ১২:৫০ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

মেক্সিকোয় অভিবাসন কেন্দ্রে ভয়াবহ আগুন, নিহত ৩৯

মেক্সিকোয় অভিবাসন কেন্দ্রে ভয়াবহ আগুন

মিহিমা আফরোজ: গত সোমবার মেক্সিকোর সিউদাদ জুয়ারেজ শহরের একটি অভিবাসন কেন্দ্রে এই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। মেক্সিকোর ন্যাশনাল ইমিগ্রেশন ইনস্টিটিউট (আইএনএম) জানিয়েছে, এই অভিবাসন কেন্দ্রে মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকার ৬৮ জন পুরুষ বন্দি ছিলেন। তাদের মধ্যে আগুনে অন্তত ৩৯ জন নিহত হয়েছে এবং আহত ২৯ জনকে ইতোমধ্যে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

মেক্সিকোর ইতিহাসে বন্দিশিবিরে ঘটে যাওয়া অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার মধ্যে এটি সবচেয়ে ভয়াবহ। এ ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে মেক্সিকোর অ্যাটর্নি জেনারেলের অফিস। এরই মধ্যে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন তদন্তকারীরা।

হতাহতদের পরিচয় বা জাতীয়তা এখনো প্রকাশ করেনি আইএনএম। তবে এই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের স্পষ্ট কোন কারণ এখনও জানা যায়নি। সিউদাদ জুয়ারেজের ফেডারেল ডেপুটি আন্দ্রেয়া শ্যাভেজ আগুনের ঘটনায় গভীর দুঃখপ্রকাশ করেছেন। 

সিউদাদ জুয়ারেজ শহরটি মূলত যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি দেওয়ার সুযোগের অপেক্ষায় থাকা অভিবাসনপ্রত্যাশীদের অন্যতম প্রধান রুট। সেখানকার বন্দিশিবিরগুলোতেও এ ধরনের লোকজনই বেশি। তবে সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলিতে মেক্সিকোর স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ও অভিবাসনপ্রত্যাশীদের মধ্যে উত্তেজনা ক্রমেই বাড়ছিল। গত নভেম্বরে গুয়াতেমালার সীমান্তের কাছে তাপাচুলায় মেক্সিকোর বৃহত্তম বন্দিশিবিরে দাঙ্গা হয়েছিল। যদিও এ দুটি ঘটনায় কেউ মারা যাননি।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়