শিরোনাম
◈ ব্রিকসকে দেওয়ার মতো অনেক কিছু রয়েছে বাংলাদেশের: ডা. দীপু মনি ◈ পল্টনে ফাইন্যান্স টাওয়ারের আগুন নিয়ন্ত্রণে ◈ ঢাকায় ৮ মাত্রার ভূমিকম্পের শঙ্কা রয়েছে: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ◈ নেপিয়ার ঘাস খেয়ে মারা গেলো খামারের ২৬ গরু ◈ এমপি আনার হত্যা তদন্তে কোনো চাপ নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ তারেক রহমানসহ পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী ◈ সাধারণ নাগরিকের মতো করেই ড. ইউনূসের বিচার হচ্ছে: আইনমন্ত্রী ◈ শিগগিরই আমাদের আন্দোলন আরও বেগবান হবে: মির্জা ফখরুল ◈ ড. ইউনূসের কথা অসত্য, জনগণের জন্য অপমানজনক: আইনমন্ত্রী ◈ সরকারের ব্যাংকঋণে বেসরকারিখাতে বিনিয়োগ ব্যাহত হবে: সিপিডি

প্রকাশিত : ২০ মে, ২০২৪, ০৬:৪৪ বিকাল
আপডেট : ২০ মে, ২০২৪, ০৬:৪৭ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

হৃত্বিককে নিয়ে যা বললেন প্রাক্তন স্ত্রী

শিমুল চৌধুরী ধ্রুব: [২] বলিউডের গ্রিক গড হৃত্বিক রোশন রঙিন পর্দায় পদার্পণ করেন ‘কাহো না পেয়ার হে’ ছবির মাধ্যমে। এরপর দর্শক মহলে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন। বাবা অভিনেতা রাকেশ রোশন এই ছবির পরিচালনা করেছিলেন। সূত্র: আইএমডিবি

[৩] ব্যক্তি জীবনে বিয়ে করেছিলেন প্রেমিকা সুজান খানকে। এরপর তাদের ঘরে আসে দুই পুত্র সন্তান রেহান এবং হৃদান। কিন্তু ২০১৩ সাল থেকেই আলাদা থাকতে শুরু করেছিলেন হৃত্বিক এবং সুজন। ২০১৪ সালে তাদের আইনি বিচ্ছেদ ঘটে। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে প্রায় ৮-৯ বছর পর বিবাহবিচ্ছেদের কারণ সম্পর্কে খোলামেলা কথা বলেছেন। সূত্র: বলিউড টকিজ

[৪] সাক্ষাৎকারে সুজান বলেন, ‘আমরা একে-অপরকে খুবই সম্মান করি। আমাদের মধ্যে বিবাহবিচ্ছেদের কারণ যদি জানতে চান, তা হলে বলব, সেই টান আর ছিলই না। অনেকটা সময় পর আমরা উপলব্ধি করেছিলাম, আমরা আলাদা থাকলেই ভাল থাকব। ফলে এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছিলাম যে, ডিভোর্সটাই চূড়ান্ত।’

[৫] উল্লেখ্য, রাকেশ রোশনের হাত ধরেই বলিউডে পা রাখেন হৃত্বিক। তারপর বেশ কিছু ছবি করেছিলেন তিনি, কিন্তু হিট হয়নি। ২০০৩ সালে ফের রাকেশের পরিচালনায় ‘কোই মিল গায়া’ সিনেমার মাধ্যমে কামব্যাক হয় তার। তারপর আসে কৃষ ফ্র্যাঞ্চাইজি। ২০০৬ সালে মুক্তি পায় কৃশ। ২০১৩ সালে আসে কৃশ ৩। এবার আসতে চলছে কৃশ ৪। হৃত্বিককে পর্দায় শেষ দেখা যায় ২০১৯ সালে ওয়ার সিনেমাতে।

এসবি২

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়