শিরোনাম
◈ পশুরহাটে ইউটিউবার ও টিকটকারের উৎপাতে অতিষ্ঠ ক্রেতা-বিক্রেতারা  ◈ বাংলাদেশের গণমাধ্যম ইতিহাসের সবচেয়ে ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে: বিএফইউজে-ডিইউজে ◈ রাঙামাটিতে বজ্রপাতে নারীসহ ৪ জনের মৃত্যু ◈ আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের প্রতি বিশ্বের ৯৩টি দেশের সমর্থন  ◈ বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য হলেন আরও ৫ জন ◈ প্রধানমন্ত্রীর ডাকে ছুটে এলো খরগোশের দল ◈ সেন্টমার্টিন ইস্যুতে সরকারের নীরবতা দাসসুলভ মনোভাবের বহিঃপ্রকাশ: মির্জা ফখরুল ◈ এবার বিএনপি কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে বড় ধরনের রদবদল  ◈ বৃক্ষ নিধন করাই বিএনপি’র চরিত্র: প্রধানমন্ত্রী ◈ হাজীদের লাব্বায়েক ধ্বনিতে মুখরিত আরাফাত ময়দান (ভিডিও)

প্রকাশিত : ২৪ এপ্রিল, ২০২৪, ১১:৫৫ রাত
আপডেট : ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ০১:৩২ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

বাড়ছে না শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি

মারুফ হাসান: দেশের অধিকাংশ জেলার ওপর চলমান তীব্র তাপপ্রবাহে সাত দিনের ছুটি চলছে দেশের সব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে। সেই ছুটি শেষ হবে আগামী ২৭ এপ্রিল। ছুটি শেষ হলেও চলতি মাসে তাপপ্রবাহ কমার কোনো পূর্বাভাস দেয়নি আবহাওয়ার অধিদফতর। এমন পরিস্থিতিতে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছুটি নিয়ে আবার আলোচনা শুরু হয়েছে।

বন্ধ থাকা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি ফের বাড়ছে কী না, এমন প্রশ্নে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি প্রশাসন। তাপপ্রবাহ যদি আগামী সপ্তাহ পর্যন্ত এমন থাকে তাহলে অনলাইনে ক্লাস চালু রেখে সরাসরি ছুটি বন্ধ রাখা হতে পারে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, তাপমাত্রা কমার পূর্বাভাস না থাকলেও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ছুটি আর বাড়ছে না। এ অবস্থায় সিলেবাস শেষ করতে মাধ্যমিকের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি না বাড়িয়ে অনলাইন ক্লাস চালুর চিন্তা করছে মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)। আর প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে ছুটি বাড়ছে নাকি ক্লাস কমিয়ে রবিবার থেকে খুলছে, সে বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

যদিও শিক্ষা প্রশাসনের কর্মকর্তারা বলছেন, ছুটি না বাড়িয়ে অনলাইন ক্লাস চালুর চিন্তা রয়েছে। সেক্ষেত্রে দুয়েকদিনের মধ্যে মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের শীর্ষ কর্তারা বৈঠকে বসে সিদ্ধান্ত নেবেন।

আবহাওয়া অফিস বলছে, দেশে চলমান এই তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে। আর এই হিট অ্যালার্টের মধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে না বন্ধ থাকবে এ নিয়ে দ্বিধায় রয়েছেন ছাত্রছাত্রী ও তাদের অভিভাবকরা।

শিক্ষা প্রশাসন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি আর বাড়বে না। আবহাওয়া পরিস্থিতির উন্নয়ন না হলে শিক্ষার্থীদের জন্য নির্দেশনা আসতে পারে অনলাইন ক্লাসের। শিক্ষকরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে বা বাসায় থেকে অনলাইনে ক্লাস নেবেন- এমন নির্দেশনা দেয়া হতে পারে।

এদিকে, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের আগের মতো ছুটি চান না অভিভাবকদের একটি অংশও।

অভিভাবক ঐক্য ফোরামের সভাপতি মো. জিয়াউল কবির দুলু মঙ্গলবার সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে জানান, আগামী ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও দেশের বিভিন্ন জেলায় অতি তীব্র তাপপ্রবাহ বহমান রয়েছে। এসব এলাকায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আরও এক সপ্তাহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার পরামর্শ দিয়েছে।


বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এ অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে অভিভাবকরা শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিবেচনায় অনলাইন মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার অনুরোধ জানাচ্ছে। অনলাইনে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনা হলে তা শিক্ষার ঘাটতি পূরণে অনেকটাই সহায়ক হবে।

মাউশির পরিচালক (মাধ্যমিক) অধ্যাপক সৈয়দ জাফর আলী বলেন, তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকলে শ্রেণি কার্যক্রম একবারে বন্ধ না রেখে অনলাইন ক্লাস কিংবা, অ্যাসাইনমেন্টের মাধ্যমে কীভাবে শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার ভেতর রাখা যায়, সেই চিন্তা করছে অধিদফতর। তবে অনলাইন ক্লাসের ব্যাপারে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানান তিনি।

আগামী ২৬ এপ্রিল শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী জেনেভা থেকে দেশে ফিরবেন। তখন এ সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হতে পারে বলে জানান এই কর্মকর্তা।


প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক শাহ রেজওয়ান হায়াত বলেন, আগামী রোববার থেকে ক্লাস খুলছে নাকি ছুটি বাড়ছে, সে বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। আগামী শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) এ বিষয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানানো হবে। যদি তাপপ্রবাহ না কমে তবে অনলাইন ক্লাস চালুর ভাবনা রয়েছে।

প্রাথমিক ও মাধ্যমিকে আগের মতো ছুটি চান না অভিভাবকদের সংগঠন অভিভাবক ঐক্য ফোরাম। ফোরামের সভাপতি মো. জিয়াউল কবির দুলু বলেন, আগামী ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও দেশের বিভিন্ন জেলায় অতি তীব্র তাপপ্রবাহ বহমান রয়েছে। এসব এলাকায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আরো এক সপ্তাহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার পরামর্শ দিয়েছে। কিন্তু ছুটি বাড়ালে সিলেবাস শেষ করতে সমস্যায় পড়তে হবে। এ অবস্থায় একেবারে ছুটি না দিয়ে অনলাইনে ক্লাস বা বিকল্প কোনো ব্যবস্থা নেয়া হোক।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, চলতি বছর সাপ্তাহিক ছুটিসহ অন্যান্য ছুটি বাদে ১৮০ দিনের মতো প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলা থাকার কথা। এর মধ্যে তাপপ্রবাহের কারণে অনির্ধারিতভাবে পাঁচ দিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে হচ্ছে। এই ছুটি দীর্ঘায়িত হলে সিলেবাস শেষ করা অনিশ্চিত হয়ে পড়তে পারে। এসব চিন্তা করেই তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকলে অনলাইনে ক্লাস নেওয়ার চিন্তা-ভাবনা চলছে।

অবশ্য দেশের একাধিক বিশ্ববিদ্যালয় শুরু থেকে অনলাইন ক্লাসে রয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ, তিন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইন ক্লাস চলছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী এক অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে তাপপ্রবাহ চলমান থাকায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি আরও বাড়ানোর সুপারিশ করবেন বলে জানিয়েছেন।

এদিকে বুধবার সন্ধ্যায় পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। এতে আগামী পাঁচ দিনের আবহাওয়ায় উল্লেখযোগ্য কোনো পরিবর্তনের সম্ভাবনা নেই বলে জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে বিরাজমান তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকার কথাও বলা হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়