শিরোনাম
◈ ইসরায়েলি হত্যাযজ্ঞে চুপ থেকে বিএনপি-জামায়াত গাজায় গণহত্যার পক্ষে অবস্থান নিয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ বঙ্গবন্ধু জাতিসংঘেরও ১৫ বছর আগে শিশু আইন প্রণয়ন করেন: আইনমন্ত্রী  ◈ বিপিএলের ফাইনাল ম্যাচের সময় চূড়ান্ত করলো বিসিবি ◈ সাবেক স্বামীর দেওয়া আগুনে দগ্ধ চিকিৎসক লতা মারা গেছেন ◈ সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে ঔষধ-পত্র ও চিকিৎসা সামগ্রী প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ◈ বিদ্যুতের দাম বাড়ছে ৮.৫০ শতাংশ, ফেব্রুয়ারিতেই কার্যকর ◈ ২ দিনের রিমান্ড শেষে ভিকারুননিসার শিক্ষক মুরাদ কারাগারে ◈ বর্তমানে মত প্রকাশের স্বাধীনতার ছিটেফোটাও নেই: রিজভী ◈ রমজানে আল-আকসা খোলা রাখতে ইসরায়েলের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের আহ্বান ◈ ৪২৪ কোটি টাকার তেল-ডাল-গম কিনছে সরকার

প্রকাশিত : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ০৭:০২ বিকাল
আপডেট : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ০৭:০২ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

ফেনসিডিল বহনের দায়ে নারীর যাবজ্জীবন

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর: [২] ফরিদপুরে বাসে করে ২৫ বোতল ফেনসিডিল বহনের দায়ে এক নারীকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অনাদায়ে তাকে আরও তিন মাস বিনাশ্রম কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে। এ মামলা দায়েরর প্রায় ১১ বছর পর এ রায় দিলেন আদালত।

[৩] সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ফরিদপুরের অতিরিক্ত দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক অশোক কুমার দত্ত এ রায় দেন।

[৪] যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ওই নারীর নাম কাকলী বেগম (২৯)। তিনি যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার নাভারণ ইউনিয়নের তুলোতলা গ্রামের বাসিন্দা।

[৫] রায় প্রদানের সময় দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আদালতে হাজির ছিলেন না। রায়ের সঙ্গে আদালত তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

[৬] মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালের ২৬ আগষ্ট যশোর থেকে চাকলাদার পরিবহনের একটি বাসে ২৫ বোতল ফেনসিডিল নিয়ে ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক ধরে বরিশালের দিকে যাচ্ছিলেন ওই নারী। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিষয়টি জানতে পারে ফরিদপুর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। এরপর ওইদিন বিকেল পাঁচটার দিকে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের একটি দল ফরিদপুর সদর উপজেলার কানাইপুর ট্রাক স্ট্যান্ড এলাকায় ওই বাসটির পথরোধ করে তল্লাশি করে ওই নারীর কাছে ২৫ বোতল ফেনসিডিল পান। 

[৭] এ ঘটনায় ওইদিনই মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ফরিদপুর সদর সার্কেলের পরিদর্শক মোহাম্মদ জাকিরুজ্জামান বাদী হয়ে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। 

[৮] এ মামলাটি তদন্ত করে ২০১৩ সালের ৩ অক্টোবর ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বিজয় কুমার মজুমদার কাকলি বেগমকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।

[৯] রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলী নওয়াব আলী মৃধা বলেন, ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১) ধারায় এ সাজা প্রদান করা হয়েছে। এ মামলার রায়ে  আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এর ফলে অপরাধীদের অপরাধ করে পার পাওয়ার সুযোগ নেই জেনে সমাজে অপরাধ প্রবণতা কমে আসবে। আমরা এ রায়ে সন্তুষ্ট।

প্রতিনিধি/একে

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়