শিরোনাম
◈ ঘন কুয়াশায় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়ায় ফেরি চলাচল বন্ধ ◈ নো ম্যানস ল্যান্ডে থাকা রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশ প্রবেশে নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু ◈ পুলিশ কর্মকর্তার গুলিতে আহত উড়িষ্যার মন্ত্রীর মৃত্যু ◈ কারাগারে অসুস্থ রিজভীর শারীরিক অবস্থার অবনতি ◈ যুক্তরাষ্ট্র ও ইইউ’র উদ্দেশ্যে তুরস্কের পাল্টা ভ্রমণ সতর্কতা ◈ প্রমোদতরী গঙ্গা বিলাস কলকাতায়, মঙ্গলবার আসবে বাংলাদেশে ◈ ভোটের অধিকার ও গণতন্ত্র পনরুদ্ধারে আমরা একমত হয়েছি: মির্জা ফখরুল  ◈ মায়ের কাছেই থাকবে দুই জাপানি শিশু, মামলা খারিজ ◈ নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে জেরুজালেমে হাজার হাজার মানুষের বিক্ষোভ ◈ খোঁজ মিলছে না উকিল আবদুস সাত্তারের প্রতিদ্বন্দ্বী আসিফের

প্রকাশিত : ২৭ নভেম্বর, ২০২২, ০৩:৫৭ দুপুর
আপডেট : ২৭ নভেম্বর, ২০২২, ০৩:৫৭ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

৬ বিঘা জমিতে সবজি চাষ করে সফল কৃষক সেলিম

সবজি চাষ করে সফল কৃষক সেলিম

মোস্তাক আহমেদ, সরিষাবাড়ী (জামালপুর) : জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে বৃহত্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলের ফসলের নিবিরতা বৃদ্ধিকরন প্রকল্পে সবজি চাষ করে সফল লাভবান ও সফল কৃষক নুরুল ইসলাম সেলিম। উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের চর পোগলদিঘা গ্রামের কৃষক সেলিম প্রতি বছরই সবজি চাষ করে একজন সফল কৃষক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। নুরুল ইসলাম সেলিম চর পোগলদিঘা গ্রামের মৃত মমতাজ আলীর ছেলে বলে জানা গেছে। 

জানা যায়, উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের চর পোগলদিঘা গ্রামের কৃষক সেলিম। বৃহত্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলের ফসলের নিবিরতা বৃদ্ধিকরন প্রকল্পের আওতায় ৬ বিঘা জমিতে টমেটো, করলা, শসা, বেগুন, মিষ্টি কুমড়া, লাউ, লাল শাক, ধনিয়া, রসুন, পাট শাক, পেপে, মাল্টা, পেয়াজ, আদা, হলুদ চাষ করে সফল ও লাভবান হয়েছেন।

জীবন-জীবিকায় ফিরে এসেছে স্বচ্ছলতা। তার এই সফলতা দেখে আশে-পাশের কয়েকজন কৃষক তার কাছ থেকে পরামর্শ নিয়ে বিভিন্ন সবজি চাষসহ অন্যান্য শীতকালীন আবাদে ঝুঁকছেন। প্রতিদিন ভোরে সেলিম ছুটে যান তার সবজি ক্ষেতে। সবজি দেখে বাড়ছে তার স্বপ্নপূরণের আশা। 

কৃষক নুরুল ইসলাম সেলিম বলেন, এবার শাক-সবজি চাষে বাম্পার ফলন হয়েছে। এ বছরও উপজেলা কৃষি অফিসের পরামর্শ ও সহযোগীতায় ৬ বিঘা জমিতে বিভিন্ন ধরনের শাক-সবজি চাষ করেছি। ৬ বিঘা জমিতে খরচ হয়েছে ১ লক্ষ ৮০ হাজার। এসব সবজি বিক্রি করে পুরো খরচ বাদ দিলে বিঘা প্রতি ৪৫ থেকে ৫০ হাজার টাকা লাভ হবে বলে আশা করি।

উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা শারমীন আক্তার বলেন, বৃহত্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলের ফসলের নিবিরতা বৃদ্ধিকরন প্রকল্প আসলে আমরা একটি প্রকল্প আমাদের কৃষক সেলিমকে দেই। এ প্রকল্পের বেগুন, টমেটো, মিষ্টি কুমড়াসহ বিভিন্ন শাক-সবজি আবাদ করা সহজতর। এ অঞ্চলের মাটি সবজি চাষের উপযোগি। উপজেলা কৃষি অফিস থেকে আমরা সবসময় মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের তদারকি ও বিভিন্ন প্রযুক্তির মাধ্যমে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। এবারও বাম্পার ফলন হয়েছে। দাম ভালো থাকায় কৃষক লাভবান হচ্ছে। 

উপজেলা কৃষি অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, চাষিদের বিভিন্ন সিজেনাল শাক-সবজি  চাষে উদ্বুদ্ধ করা হয়েছে। একইসঙ্গে কৃষি অফিস থেকে সকল ধরনের সহযোগিতা, মাঠ পর্যায়ে গিয়ে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ফলশ্রুতিতে বাম্পার ফলন হয়েছে ও কৃষক লাভবান হচ্ছে।

প্রতিনিধি/জেএ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়