শিরোনাম
◈ প্রধানমন্ত্রীর থাইল্যান্ড সফরে রোহিঙ্গা ফেরাতে সহযোগিতা চাওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী  ◈ যুদ্ধের অর্থ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় ব্যয়  হলে বিশ্ব রক্ষা পেতো: প্রধানমন্ত্রী ◈ বুধবার থাইল্যান্ড সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী, সই হচ্ছে ছয় চুক্তি-সমঝোতা ◈ আরও ৭২ ঘণ্টার  ‘হিট অ্যালার্ট’ জারি ◈ যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিপরিষদে টিকটক নিষিদ্ধের বিল পাস ◈ অভিনেতা ওয়ালিউল হক রুমি মারা গেছেন ◈ গরমের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রেকর্ড গড়েছে ডাবের দাম ◈ আজ ঢাকা আসছেন কাতারের আমির, ১১টি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হবে ◈ মালদ্বীপের নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলো প্রেসিডেন্ট মুইজ্জুর দল  ◈ সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার তৃতীয় ধাপের সংশোধিত ফল প্রকাশ

প্রকাশিত : ০২ এপ্রিল, ২০২৪, ১০:৫৯ রাত
আপডেট : ০৩ এপ্রিল, ২০২৪, ১১:১৯ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

এক বছরেই তিন ঈদ 

ওয়ার হুইল টারনার: [২] এক বছরে তিনটি ঈদের আমেজ নিশ্চয় মুসলিমদের জন্য অত্যন্ত আনন্দের সংবাদ। তবে এমন ঘটনা বিরল। বিরল হলেও এমনটাই ঘটতে যাচ্ছে ২০৩০ সালে। এই বছরে দুটি রমজান এবং ঈদুল আজহার আমেজ পাবেন মুসলিমরা। এমনটাই জানিয়েছেন সৌদি জ্যোতির্বিদ খালেদ আল-জাকাক। সূত্র:সময় টিভি

[৩] সৌদি সংবাদমাধ্যম আল-আরাবিয়ার জানায়, এক বছরে দুবার রমজান মাস পাওয়ার মূল কারণ হলো চান্দ্র এবং সৌর বছরের মধ্যকার পার্থক্য। মুসলিমরা সাধারণত হিজরি সাল গণনা করে থাকেন চাঁদের ওপর ভিত্তি করে। অন্যদিকে গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার গণনা করা হয় সূর্যের চারপাশে পৃথিবীর আবর্তনের সময় বিবেচনা করে। একারণে এ দুই বছরের মধ্যে সময়ের পার্থক্য থাকে। 

[৪] সাধারণত হিজরি বছরে দিন থাকে ৩৫৪ থেকে ৩৫৫ দিন এবং সৌর বছরের ওপর ভিত্তি করে তৈরি করা গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারে দিন থাকে ৩৬৫ থেকে ৩৬৬ দিন। হিজরি এবং গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারে সময়ের তফাৎ থাকে ১০ থেকে ১১ দিন। এ কারণে বছরে বছরে ভিন্ন ভিন্ন ঋতুতে রোজা পালন করতে হয়।  

[৫] এই পার্থক্যের কারণে গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারে প্রায় প্রতি ৩০ বছর পরপর একই বছরে দুইবার রমজান পাওয়া যায়। এর আগে ১৯৬৫ সাল, ১৯৯৭ সালে একই বছরে দুইবার রমজান মাস পাওয়া গিয়েছিল। ২০৩০ সালের পর আবার ২০৬৩ সালে এমনটা হবে।  

[৬] হিজরি বছর ১৪৫১ অনুসারে ২০৩০ সালের ৫ জানুয়ারি শুরু হবে সে বছরের প্রথম রমজান। এর ধারাবাহিকতায় ইদুল আজহা অনুষ্ঠিত হবে আরবি দুই মাস দশদিন পর। এবং সেবছরই আবার আরবি হিজরি ১৪৫২ শুরু হবে ২৬ ডিসেম্বর। ফলে একই বছরে দুটি ইদের পাশাপাশি আরেকটি ইদের আগমনী বার্তা পাবেন মুসলিমরা। সম্পাদনা: এস চর্কবর্তী

 

 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়