শিরোনাম
◈ সৌদিতে কোরবানি ঈদের সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা ◈ শ্রম আইন লঙ্ঘনের সাজাপ্রাপ্ত মামলায় স্থায়ী জামিন চাইবেন ড. ইউনূস ◈ ছুটি শেষে ঢাকায় ফিরছে কর্মজীবী মানুষ ◈ স্বাস্থ্যখাতে নতুন অশনি সংকেত অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স: স্বাস্থ্যমন্ত্রী  ◈ কৃষি খাতে ১০ শতাংশ প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যে তিন  বছরে সাড়ে ৩৮ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ ◈ বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৬.১ শতাংশ: এডিবি ◈ বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে বিজিপির ১৪ সদস্য ◈ সিলেটে বিদ্যুৎকেন্দ্রের আগুন নিয়ন্ত্রণে, ৭০ হাজার গ্রাহক বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন ◈ ৬০ লাখ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলার তালিকা প্রকাশ করুন: মির্জা ফখরুলকে ওবায়দুল কাদের ◈ পাল্টা হামলার বিরুদ্ধে ইসরায়েলকে ইরানের কঠোর হুঁশিয়ারি 

প্রকাশিত : ০৫ মার্চ, ২০২৪, ০৪:০৭ দুপুর
আপডেট : ০৫ মার্চ, ২০২৪, ০৮:১৯ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

বিআরটি প্রকল্পের ঢাকা-ময়মনসিংহ উড়াল সড়কের এক লেন চালু 

এ এইচ সবুজ, গাজীপুর: [২] বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের গাজীপুর চান্দনা চৌরাস্তা এলাকার উড়াল সড়কের একটি লেন খুলে দেওয়া হয়েছে।

[৩] মঙ্গলবার (৫ মার্চ) ভোর ৫টায় এই লেন খুলে দেওয়ার পর থেকে যানবাহন চলাচল শুরু হয়েছে। এতে অনেকটা স্বস্তি ফিরেছে ওই পথে চলাচলকারীদের।

[৪] বিআরটি প্রকল্প কর্তৃপক্ষ জানায়, যানজট কমাতে কাজ শেষ হওয়ার আগেই একটি লেন খুলে দেওয়া হয়েছে। এখন থেকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা ময়মনসিংহগামী ও গাজীপুরের জয়দেবপুরগামী পরিবহন চন্দনা চৌরাস্তা এলাকার উড়াল সড়ক ব্যবহার করে চলতে পারবে। তবে ঢাকাগামী পরিবহনগুলো উড়াল সড়কের নিচ দিয়ে চলাচল করতে হবে।

[৫] বিআরটি প্রকল্পের সবচেয়ে বড় কর্মযজ্ঞ গাজীপুরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত চান্দনা চৌরাস্তা। ময়মনসিংহগামী, টাঙ্গাইল- উত্তরবঙ্গগামী এবং গাজীপুর শহরে প্রবেশ করতে হয় এই পথ ধরেই। প্রকল্প কাজ চলমান থাকায় দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা পরিবহনগুলো ভোগরা বাইপাস হয়ে নাওজোর দিয়ে প্রবেশ করতো। ফলে দীর্ঘ যানজট এবং চমর ভোগান্তি ছিল যাত্রীদের। এই ফ্লাইওভারের লেন খুলে দেওয়ায় ভোগান্তি অনেকাংশেই লাঘব হবে।

[৬] গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ডিসি (ট্রাফিক) আলমগীর হোসেন জানান, মঙ্গলবার সকালে ময়মনসিংহগামী ও জয়দেবপুর শহরগামী লেন খুলে দেওয়া হয়েছে। আশা করছি পরিবহন চলাচলের যে সমস্যাটি সাময়িক তৈরি হয়েছিল, তা এখন আর থাকবে না। জয়দেবপুর থেকে অন্য লেনটির কাজও শেষ। এটিও ছেড়ে দেওয়া হবে।

[৭] উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১৬ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত চার বছর মেয়াদ ছিল প্রকল্পটির। এই সময়ে প্রকল্পের কাজ শুরুই করতে পারেনি বিআরটি। তিন দফা প্রকল্প সংশোধন করে চলতি বছরের ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত মেয়াদকাল নির্ধারণ করা হয়েছে। শুরুতে বিআরটি প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয় ২ হাজার ৩৯৮ কোটি ৪ লাখ টাকা। প্রকল্পের তিন দফা সংশোধনের পর ব্যয় বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ২৬৮ কোটি ৩২ লাখ টাকা।

প্রতিনিধি/একে

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়