প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কুলাউড়ায় নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে ৩৩ প্রার্থীকে জরিমানা

স্বপন দেব: [২] মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘনের দায়ে বিভিন্ন ইউনিয়নে দুইজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন। সোমবার (২২ নভেম্বর) সারাদিন উপজেলার টিলাগাঁও, হাজীপুর ও শরীফপুর ইউনিয়নে ও রোববার রাতে উপজেলার রাউৎগাঁও, পৃথিমপাশা ও কর্মধা ইউনিয়নে নির্বাচনী আচরণবিধি না মানায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ৩৩ প্রার্থীকে মোট ১ লাখ ২৭ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

[৩] মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন কুলাউড়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সজল মোল্লা ও জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রফিকুল ইসলাম। এসময় কুলাউড়া থানা পুলিশ সহায়তা করেন।
এসময় দেয়ালে লিফলেট ও পোস্টার লাগানো, একাধিক মাইক ব্যবহার, নির্বাচনী কার্যালয়ে গেইট তৈরি করায় সোমবারের অভিযানে হাজীপুর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল বাছিত বাচ্চু (ঘোড়া) ৫ হাজার, নৌকার প্রার্থী ওয়াদুদ বক্স ৫ হাজার টাকা, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ মাহমুদ আলী (আনারস) ৫ হাজার টাকা, কয়ছর মিয়া (মোটরসাইকেল) ৫ হাজার টাকা, মেম্বার প্রার্থী মোশারফ হোসেন মিজু ৫ হাজার টাকা। টিলাগাঁও ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল মালিক (আনারস) ৫ হাজার টাকা, নৌকার প্রার্থী মোঃ আব্দুল মালিককে ৫ হাজার টাকা।

[৪] শরীফপুর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান জনাব আলী (আনারস) ৫ হাজার টাকা, নৌকার প্রার্থী চিনু মিয়া ৫ হাজার টাকা, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ খলিলুর রহমান (চশমা) ৫ হাজার টাকা, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ জামাল উদ্দিন (মোটরসাইকেল) ৫ হাজার টাকা, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর আকমল (হাতপাখা) ৫ হাজার টাকাসহ তিন ইউনিয়নের আরো ৬জন মেম্বারপ্রার্থীকে ৫ হাজার ৫০০ টাকাসহ মোট ৭০ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়।
রোববার ২১ নভেম্বর রাতে রাউৎগাঁও ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল জামাল ৫ হাজার টাকা, নৌকার প্রার্থী আকবর আলী সোহাগ ৫ হাজার টাকা, স্বতন্ত্র প্রার্থী সৈয়দ ইকবাল ছালাম ৫ হাজার টাকা, একজন ইউপি সদস্য ১ হাজার টাকা, পৃথিমপাশা ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী আব্দুল মন্নাফ ৫ হাজার টাকা, স্বতন্ত্র প্রার্থী জিমিউর রহমান ফুল ৫ হাজার টাকা, একজন ইউপি সদস্য ১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অপরদিকে, কর্মধা ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান এম এ রহমান আতিক ৫ হাজার টাকা, আ’লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী মুহিবুল ইসলাম আজাদ ৫ হাজার টাকা, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ আব্দুস সালামকে ৫ হাজার টাকা, একজন ইউপি সদস্য ১ হাজার টাকাসহ মোট ৫৭ হাজার টাকা জরিমানা করে আদায় করা হয়েছে।

[৫] মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সজল মোল্লা বলেন, জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় নির্বাচনী আচরণ বিধি প্রতিপালনে নিয়মিত মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। তাছাড়া আচরণবিধি মানতে প্রার্থীদের কঠোরভাবে সতর্ক করা হচ্ছে। যারাই বিধি ভঙ্গ করছেন তাদেরকে জরিমানা করা হচ্ছে।

[৬] উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম ফরহাদ চৌধুরী বলেন, নির্বাচনী আচরণবিধি মানতে প্রার্থীদের বারবার নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে। অথচ অনেক প্রার্থীই নির্বাচনী আচরনবিধি লঙ্ঘন করছেন।

[৭] প্রতিদিনই মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হলেও প্রতিটি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান ও মেম্বার প্রার্থীরা পাল্লা দিয়ে নির্বাচনী আচরনবিধি লঙ্ঘন করেই যাচ্ছেন। বিশেষ করে প্রার্থীদের প্রচারণার মাইকিং, পথসভা, মিছিলের কারণে এসএসসি, এইচএসসি পরীক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণির শিক্ষার্থী ও অসুস্থ রোগীরা অসহনীয় দূর্ভোগ পোহাচ্ছেন।

 

সর্বাধিক পঠিত