প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মেজর সিনহা হত্যা মামলা: সপ্তম দফায় দ্বিতীয় দিনের বিচারকার্য শুরু

আয়াছ রনি: [২] কক্সবাজারের টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপের নির্দেশে পুলিশ কর্মকর্তা লিয়াকত আলীর গুলিতে নিহত হন অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।

[৩] মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) এই হত্যা মামলার সপ্তম দফায় ২য় দিনের সাক্ষ্য গ্রহণ ও জেরা মামলার প্রথম তদন্তকারী কর্মকর্তা এএসপি জামিরুল হকের অসমাপ্ত জেরা দিয়ে আজকে আদালতের বিচারকার্য সকাল ১০ টায় কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল এর আদালতে উভয়পক্ষের আইনজীবীদের উপস্থিতে বিচারকার্য শুরু হয়েছে বলে জানান রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী।

[৪] ৭ম দফার প্রথমদিনে সাক্ষ্য দিয়েছেন এসআই মো: কামাল হোসেন, কনষ্টেবল মোশারফ হোসেন, সার্জেন্ট আয়ুব আলী, পুলিশ পরিদর্শক মানস বড়ুয়া, পুলিশ পরিদর্শক এবিএম শামসুদ্দোহা। এবং সহকারী পুলিশ সুপার জামিলুল হকের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হলেও জেরা অসমাপ্ত রয়ে গেছে বলে জানান মামলাটির রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ফরিদুল আলম।

[৫] কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সেরেস্তাদার এম. নুরুল কবির জানান-এ মামলার চার্জশীটের ৮৩ জন সাক্ষীর মধ্যে ৬৪ জনের সাক্ষী ও জেরা সম্পন্ন হয়েছ। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা র‍্যাব-১৫ সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ খায়রুল ইসলামকে সহ বাকী সাক্ষীদের আদালতে সাক্ষ্য দিতে সমন দেওয়া হয়েছে।

[৬] রাষ্ট্র পক্ষে মামলাটির আইনজীবী ও কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি (পাবলিক প্রসিকিউটর) এডভোকেট ফরিদুল আলম, অতিরিক্ত পিপি এডভোকেট মোজাফফর আহমদ হেলালী, এপিপি এডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহমদ সাক্ষীদের জবানবন্দী গ্রহণ করবেন। অপরদিকে, আসামীর পক্ষের আইনজীবীরা সাক্ষীদের জেরা করবেন।

[৭] সাক্ষ্য গ্রহণকালে মামলার ১৫ জন আসামীকেও কড়া নিরাপত্তায় আদালতে হাজির করা হয়েছে বলে জানান-পিপি এডভোকেট ফরিদুল আলম।

[৮] আসামিরা হলেন : বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির তৎকালীন পরিদর্শক লিয়াকত আলী, টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, রুবেল শর্মা, টেকনাফ থানার এসআই নন্দদুলাল রক্ষিত, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কামাল হোসেন, আব্দুল্লাহ আল মামুন, এএসআই লিটন মিয়া।প, কনস্টেবল সাগর দেব, এপিবিএনের এসআই মো. শাহজাহান, কনস্টেবল মো. রাজীব ও মো. আবদুল্লাহ, পুলিশের মামলার সাক্ষী টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুরের মারিশবুনিয়া গ্রামের নুরুল আমিন, মো. নিজামুদ্দিন ও আয়াজ উদ্দিন।

[৯] উল্লেখ্য ২০২০ সালের ১৩ ডিসেম্বর ৮৩ জন সাক্ষী সহ ১৫ জনকে আসামি করে আলোচিত মামলাটি ‘পরিকল্পিত ঘটনা’ উল্লেখ করে অভিযোগপত্র দাখিল করেন র‍্যাব-১৫ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ খায়রুল ইসলাম।

[১০] সিনহা হত্যা মামলা নম্বর : এসটি-৪৯৩/২০২১ইং, জিআর মামলা নম্বর : ৭০৩/২০২০ ইং, যার টেকনাফ মডেল থানা মামলা নম্বর : ৯/২০২০ ইং।

সর্বাধিক পঠিত