প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শায়লা রহমান তিথি: ডাবল জিরো!

শায়লা রহমান তিথি: ২০০৮ সালের কথা। একটা প্রাইভেট চাকরির ইন্টারভিউ দিতে গেলাম। চেয়ারম্যান স্যার আমার মৌখিক ইন্টারভিউ নেওয়ার পর বললেন, তুমি পরশু থেকে জয়েন করতে পার। তবে তোমার বড় একটা সমস্যা আছে। তা যদি কাটিয়ে উঠতে না পার তবে মানুষ তোমাকে পেয়ে বসবে। এমনকি তোমার নীচের পোস্টে যারা কাজ করবে, তারাও তোমার অর্ডার মানতে চাইবে না।

তারপর কিছুক্ষণ স্যার চুপ। আমিও চুপ। মনের মধ্যে ভয় আর একধরনের অস্বস্তি কাজ করছিলো। অল্প সময় পরই স্যার বলতে লাগলেন, আমি ১৫ মিনিট যাবৎ তোমার ইন্টারভিউ নিচ্ছি কিন্তু একবারের জন্যও তোমার সাথে আই কন্টাক্ট করতে পারিনি। যেখানেই কাজ করো না কেন, একটা কথা সবসময় মেনে চলবে তাহল চেয়ারম্যান হোক, এমডি হোক, সহকর্মী হোক, পিয়ন বা দারোয়ান হোক-সরাসরি সবার চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলবে। আমি তোমাকে আমার প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেবো বলে তুমি আমার কাজ করতে বাধ্য। আর আমিও মাস শেষে তোমাকে টাকা দিতে বাধ্য আমার কাজ করবে বলে। একদিক দিয়ে চিন্তা করলে আমরা দুজনেই দুজনের অধিনস্ত। কাজেই চোখ নীচের দিকে নামিয়ে কথা বলে নিজেকে ছোট প্রতিপন্ন করার কোনো কারণ নেই।

স্যারের কথাগুলো সেদিন খুব মনোযোগ দিয়ে শুনেছিলাম, কিন্তু এর গুরুত্ব ততোটা বুঝতে পারিনি যতোটা বুঝতে পারি এখন। স্যার বেঁচে থাকলে সমাধান চাইতাম। বলতাম, স্যার আমি এখনো কারও চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলতে পারি না। মানুষ একদিকে আর আমার চোখ আরেক দিকে। ফলাফল তাই ডাবল জিরো। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত