শিরোনাম
◈ বিএনপি এখন ‘নালিশ পার্টি’ থেকে ‘মাথা খারাপ পার্টি’: তথ্যমন্ত্রী ◈ চাঁদপুরে বাসায় ঢুকে আ.লীগ নেতাকে হত্যা ◈ ভোটচুরির সুযোগ পাচ্ছে না বলে নির্বাচন নিয়ে বিএনপির শঙ্কা: প্রধানমন্ত্রী  ◈ জলবায়ু ইস্যুতে ধনী দেশগুলোর অবদান দুঃখজনক: প্রধানমন্ত্রী ◈ জাতিসংঘ ও বাংলাদেশের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সহযোগিতার প্রশংসা করলেন গুতেরেস  ◈ বিপর্যস্ত রুশ বাহিনী, বিপজ্জনক দিকে মোড় নিচ্ছে ইউক্রেন যুদ্ধ ◈ কৃষ্ণা-শামসুন্নাহারকে টাকা, সানজিদাকে আইফোন দিল বাফুফে  ◈ শাওনের মৃত্যুতে গণঅভ্যুত্থান ঘটেছে: মির্জা ফখরুল ◈ বিশ্ববাজারে দুই বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন দামে স্বর্ণ ◈ যেভাবে পাওয়া যাবে কাতার বিশ্বকাপের ‘হায়া কার্ড’

প্রকাশিত : ২৭ অক্টোবর, ২০২১, ০৩:০০ রাত
আপডেট : ২৭ অক্টোবর, ২০২১, ০৩:০০ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

শওগাত আলী সাগর: সোশ্যাল মিডিয়ার বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী রাষ্ট্রগুলো যে একধরনের লড়াই শুরু করতে যাচ্ছে

শওগাত আলী সাগর
ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ওপর ‘ক্র্যাকডাউন’ পরিচালনা এবং অর্থবহ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকারসমূহের জন্য অপরিহার্য হয়ে পড়েছে। কাজটা আরও অনেক আগেই করা দরকার ছিলো। কিন্তু এখন আর দেরি নয়। কানাডার দুই এমপি এভাবেই ফেসবুক নিয়ে নিজেদের প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছিলেন গেøাবাল টেলিভিশনের সঙ্গে। দু’জনই বেশ জোর দিয়ে ‘ক্র্যাকডাউন’ শব্দটা ব্যবহার করলেন। নাথানিয়্যাল আরস্কিন স্মিথ সরকারি দল লিবারেল পার্টির এমপি। আর চার্লি অ্যাঙগাস- বিরোধী দল এনডিপির। কিন্তু ফেসবুক নিয়ে সরকার এবং বিরোধী দলীয় সদস্যের মতামত এবং প্রতিক্রিয়া একেবারেই অভিন্ন। দু’পক্ষই এর ওপর সরকারের কার্যকর নিয়ন্ত্রণ চায়। তারা দু’জনেই ‘ইন্টারন্যাশনাল গ্র্যান্ড কমিটি অন ডিসইনফরমেশ’ এর সদস্য, কানাডিয়ান সরকারের প্রতিনিধিত্ব করছেন তারা।

দু’জনেই ফেসবুক, ইউটিউবসহ সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ন্ত্রণে জাস্টিন ট্রæডো সরকারের প্রস্তাবিত ‘ডিজিটাল চার্টার ইমপ্লিমেন্টশন অ্যাক্ট- সি-১১ এর পক্ষে নিজেদের অবস্থান জানালেন, বললেন নতুন সংসদ অধিবেশনের শুরুতেই এমপিদের উচিত হবে এই বিলটি পাস করা। ‘ইন্টারন্যাশনাল গ্র্যান্ড কমিটি অন ডিসইনফরমেশন’ গঠিত হয়েছিলো ২০১৮ সালে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের এমপিদের সমন্বয়ে এই প্লাটফর্মের মূল লক্ষ্য হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ার ওপর রাষ্ট্রের অর্থবহ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠায় বিভিন্ন দেশের আইন প্রণেতা এবং নীতিনির্ধারকদের মধ্যে সমন্বয় স্থাপন করা। আগামী মাসে ব্রাসেলসে এই কমিটি ফেসবুক থেকে বেরিয়ে আসা কর্মকর্তা ফ্রান্সিস হুগানের বক্তব্য শুনবে।

গেবাল নিউজ জানিয়েছে, (সোমবার) থেকে আমেরিকার ১৭টি সংবাদ মাধ্যম ফেসবুকের অভ্যন্তরীণ পরিচালনা এবং তার ক্ষতিকর প্রভাব নিয়ে সংবাদ পরিবেশন শুরু করেছে। গেøাবাল নিউজের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে লিবারেল এমপি নাথানিয়্যাল বলেছেন, ফেসবুকসহ সোশ্যাল মিডিয়া যে ‘অ্যালগোরিদমস’ ব্যবহার করে তার আরও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করার পাশাপাশি তার ওপর সরকারের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করা দরকার। বলাই বাহুল্য, জাস্টিন ট্রæডোর লিবালে পার্টিও ঠিক একই ভাবনা ভাবছে। আগামী মাসে নতুন সংসদের অধিবেশন বসলে সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ে সরকারের ‘ক্র্যাকডাউন’ প্রস্তাবনার ভবিষ্যৎ সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা পাওয়া যাবে। তবে সোশ্যাল মিডিয়ার বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী রাষ্ট্রগুলোই যে একধরনের লড়াই শুরু করতে যাচ্ছে- সেটি মোটামুটি পরিষ্কার। লেখক: কানাডা প্রবাসী সাংবাদিক

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়