প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আরিফ আর হোসেন: ‘গরের মাংস ভাই পাইলেন কই’ প্রশ্ন করা হলে বলেন, ‘আমরা সবসময়ই জাতিকে ভিন্ন কিছু উপহার দিতে চাই’!

আরিফ আর হোসেন: একটা নিউজ ঘুরছে হোম পেইজে‘গন্ডারের পঁচা মাংস দিয়ে রান্না হচ্ছে হাজী বিরিয়ানি দোকান সিলগালা করে দিয়েছেন ম্যাজিস্ট্রেট’। আমি বুঝলাম না প্রবলেমটা পঁচা মাংসেতে নাকি গরের মাংসেতে? মাংসটা পঁচা না হয়ে ফ্রেশ হলে ব্যাপারটা ওকে হতো? এই বিষয়ে ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রশ্ন করা হলে উনি বলেন, আমার কাজ পঁচা মাংস বের করা, মাংসটা গরের নাকি ডায়নসরের এটা আমার বিবেচ্য বিষয় নয়, আমি ‘বাই দ্য বুক’ চলা মানুষ, আমি ভাই খাদ্য মন্ত্রণালয়ের ম্যাজিস্ট্রেট। পশুসম্পদ মন্ত্রণালয়ের না

এই বিষয়ে হাজি বিরিয়ানির কর্ণধারকে, ‘গরের মাংস ভাই পাইলেন কই’ প্রশ্ন করা হলে উনি বলেন; আমরা সবসময়ই জাতিকে ভিন্ন কিছু উপহার দিতে চাই। পরিবেশনে যেমন আমাদের বৈচিত্র্য আছে (কখনও খাবার পরিবেশন করি কলা পাতায়, কখনও বক্সে, কখনও প্লেটে), তেমনি খাদ্যের উপাদানের ব্যাপারেও আমরা সব সময় আউট অফ দ্য বক্স ভাবার চেষ্টা করি, কিন্তু আমার কর্মচারীরা যে এই আউট অফ দ্য বক্সের মতো মোটিভেশনাল লাইনটিকে এতোদূর নিয়ে যাবে আমি বুঝিনি।

এ বিষয়ে অত্র বিভাগের সরকারি চিড়িয়াখানার ভারপ্রাপ্ত পরিচালককে যখন প্রশ্ন করা হয় যে আপনাদের গরের সংখ্যা ঠিক আছে নাকি একটু গুনে দেখেন তো। তখন উনি উত্তর দেন; পাজি বিরিয়ানী না হাজি বিরিয়ানির খবরটা আমাদের কানে এসেছে। প্রথমত, না খাইলে কেমনে বুঝব এটা সরকারি গরের মাংস নাকি? আর দ্বিতীয় ব্যাপার হলো, এমন তো হতে পারে এটা প্রাইভেট কোনো গরের মাংস, আপনাদের সমস্যাই হলো কোন ক্লু পেলেই আমাদের দিকে আঙ্গুল তোলা। এভাবে পদে পদে টেনে ধরতে থাকলে দেশ ভাই আগাবে কেমনে? আশেপাশে তো অনেক গন্ডার আছে। ওদের গিয়ে প্রশ্ন করেন। স্যার কি শেষের লাইনটা রূপক অর্থে বলেছেন, নাকি কথার কথা বলেছেন এ ব্যাপারে উনি আর কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। Arif R Hossain -র ফেসবুক ওয়ালে লেখাটি পড়ুন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত