প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দুই দিনে নগদের ৪৭ কোটি টাকারও বেশি হাতিয়ে নিয়েছেন জুয়েল রানা: নগদ সিইও

নিউজ ডেস্ক: মাত্র দুই দিনের মধ্যে ডাক বিভাগের মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস নগদের ৪৭ কোটি টাকারও বেশি হাতিয়ে নিয়েছে সিরাজগঞ্জ শপের মালিক জুয়েল রানা। এই ঘটনায় প্রতারণার অভিযোগে জুয়েল রানার বিরুদ্ধে মামলা করেছে নগদ। ইত্তেফাক

নগদের সিনিয়র নির্বাহী কর্মকর্তা তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী রাজধানীর বনানী থানায় গত ১৩ সেপ্টেম্বর এই মামলাটি করেন। মামলায় তিনি অভিযোগ করেছেন, গ্রাহকদের কাছ থেকে পণ্যের দাম পরিশোধের মাধ্যম হিসেবে নগদ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ২০২১ সালের ১৪ মার্চ চুক্তিবদ্ধ হয় সিরাজগঞ্জ শপ ডটকম। ৩০ ও ৩১ আগস্টে নগদের সিরাজগঞ্জ শপ ডটকমের কিছু একাউন্টে অস্বাভাবিক লেনদেন ধরা পড়ে। পরে হিসেব করে দেখা যায়, কয়েকজন গ্রাহকের জন্য রিফান্ড রিকোয়েস্ট পাঠিয়ে মোট ৪৭ কোটি ৪৩ লাখ ১৮ হাজার ৯৬৩ টাকা নেওয়া হয়।

তৌহিদুল ইসলাম বলেন, এই লেনদেনগুলোর নগদের স্বয়ংক্রিয় সিস্টেম কতগুলো বিষয়ে সতর্কবার্তা দেয়। তা হল- একই সাথে অস্বাভাবিক মাত্রার রিফান্ড রিকোয়েস্ট; একই পরিমাণ টাকার জন্য একই একাউন্টে বার বার রিকোয়েস্ট; সফলভাবে পণ্য সরবরাহ হয়েছে- এমন অর্ডারের বিপরীতে রিফান্ড রিকোয়েস্ট; অর্ডার করা পণ্যের দামের সঙ্গে রিফান্ড রিকোয়েস্টে দেওয়া টাকার পরিমাণের গরমিল এবং গভীর রাতে রিফান্ড রিকোয়েস্ট পাঠানো।

নগদের হেড অব কমিউনিকেশন জাহিদুল ইসলাম জানান, ঘটনার পরদিন ১ সেপ্টেম্বর জুয়েল রানা নগদ অফিসে এসে রিফান্ড রিকোয়েস্টগুলো ‘ভুলবশত’ হয়েছে জানিয়ে সমপরিমাণ টাকার চেক দেয় কর্তৃপক্ষকে। কিন্তু সেই চেক ব্যাংকে দিয়ে টাকা তোলা যায়নি। কিন্তু তারপর থেকে জুয়েল রানার সঙ্গে নগদ আর যোগাযোগ করতে পারেনি।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে সিরাজগঞ্জ শপ ডটকমের মালিক জুয়েল রানার মোবাইল ফোনে কল করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। মামলার অগ্রগতি জানতে চাইলে গুলশান বিভাগের উপ-কমিশনার আসাদুজ্জামান বলেন, মামলাটি তদন্ত করা হচ্ছে। এজাহারভুক্ত আসামিকে ধরার চেষ্টা করা হচ্ছে।