প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পুষ্টিচাহিদা মেটাতে লিচুর উপকারিতা

ডেস্ক নিউজ: লিচু ছোট-বড় সকলের অনেক প্রিয় একটি ফল। সুস্বাদু এই ফলে আছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ‘সি’। এছাড়াও রয়েছে প্রচুর পরিমাণে শ্বেতসার, ভিটামিন ও খনিজ লবণ।লিচুতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালরি থাকে, যা আমাদের শক্তি জোগাতে সহায়তা করে। লিচুতে থাকা কার্বোহাইড্রেট ও ফাইবার হজমে দারুণ ভাবে সহায়তা করে।

লিচুর পাতার কিছু ভেষজ গুণ রয়েছে। পোকামাকড়ে কামড়ালে লিচুর পাতার রস ব্যবহারে ভালো হয়। কাশি, পেটব্যথা, টিউমার দমনে লিচু কার্যকর। লিচুতে থাকা ক্যালসিয়াম আমাদের দেহের হাড়, দাঁত, চুল, ত্বক, নখ ভালো রাখে। এর নিয়াসিন ও রিবোফ্লাভিন নামক ভিটামিন ‘বি’ কমপ্লেক্স শরীরের জ্বালাপোড়া, দুর্বলতা দূর করে।

তবে খালি পেটে লিচু খাওয়া যাবে না। লিচুতে ‘হাইপোগ্লাইসিন’ নামে একটি উপাদান আছে যা মৃত্যুর কারণ হয়ে উঠতে পারে। ‘হাইপোগ্লাইসিন’ নামের এই উপাদানটি শরীরে শর্করার পরিমাণ অত্যন্ত কমিয়ে দেয়। এই ফল একবারে বেশি পরিমাণে না খেয়ে পরিমিত খেতে হবে। লিচু খাওয়ার আগে এক থেকে তিন ঘণ্টা ভিজিয়ে রেখে খেলে বাজারের ফরমালিন কেটে যায় ।

লিচু শরীরের পুষ্টিচাহিদা পূরণে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। লিচুর মূল উপাদান জলীয় অংশ অনেক বেশি থাকে। এর বাইরে প্রোটিন ও কার্বোহাইড্রেট খুব অল্প পরিমাণে থাকে। কম ক্যালরি সম্পন্ন এই ফল সবাই খেতে পারে। তবে যাদের মিষ্টি খাওয়া কিছুটা ঝুঁকির অর্থাৎ ডায়াবেটিস রোগী, তাদের জন্য এই ফল কিছুটা কম খাওয়াই ভালো।

এছাড়াও লিচুতে ভিটামিস-সি, ক্যালসিয়াম পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকে। অন্যান্য খনিজ উপাদানগুলো হচ্ছে- আয়রন, ফলিক অ্যাসিড, ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম। এ কারণে দৈনন্দিন পুষ্টিচাহিদা মেটাতে লিচু অনেক ভূমিকা রাখে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত