প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] হেফাজতকে নিষিদ্ধ করার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে ইসলামী ফ্রন্ট

দিদারুল আলম:[২] নৈতিক পদস্খলন ও জঙ্গিবাদী কর্মকাণ্ডে যুক্ত হেফাজত ইসলামকে নিষিদ্ধসহ ৭ দফা দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট।বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের এস রহমান হলে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

[৩] বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনটির মহাসচিব মাওলানা এম এ মতিন।এসময় বক্তব্যে বলা হয়, হেফাজত বাংলাদেশের একটি জঙ্গি গোষ্ঠি। মামুনুল হকের রির্সোট কাণ্ডের পর এবার জঙ্গি কর্মকাণ্ডে তাদের সব তথ্য ফাঁস হওয়ার পর তারা ছাত্রদের দিয়ে রাজনীতি করবে না বলে যে আশা দিয়েছে, তা সম্পূর্ন মিথ্যা আর তাদের অপকর্ম ঢাকতে সাময়িক চালাকি।

[৪] তাই এদের মত ১৯৭১ সালের যুদ্ধাপরাধী রাজাকার-আলবদর-আলশামসের মত কওমীপন্থী মুজাহিদ বাহিনীসহ হেফাজতি কর্মকাণ্ডে জড়িত সকল সংগঠনকে নিষিদ্ধ করা হোক।এসময় ইসলামী ফ্রন্টের সাত দফা দাবি উপস্থাপন করা হয়। দাবিসমূহ হলো- রাজাকার আলবদর আলশামসের মতো কওমিপন্থী মুজাহিদ বাহিনীকেও আন্তর্জাতিক মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইবব্যুনালে বিচার করতে হবে।

[৫] অবিলম্বে জঙ্গি সংগঠনের তালিকাভুক্ত করে হেফাজতে ইসলামকে নিষিদ্ধ করতে হবে। কওমি মাদ্রাসাকে অডিটের মধ্যে এনে সরকারি নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে হবে। আলিয়া-কওমি উভয় ধারাকে অভিন্ন শিক্ষানীতির আলোকে পরিচালনার উদ্যোগ নিতে হবে। কওমি-হেফাজতি জঙ্গিদের অর্থ ও মদতদাতা যে দলেরই হোক না কেন সবাইকে বিচারের মুখোমুখি করতে হবে।

[৬] খেলাফত মজলিসের নিবন্ধন বাতিলসহ দলটিকে নিষিদ্ধ করতে হবে। নারী নিপীড়ক, ধর্ষক, হত্যাকারীদের রাজনৈতিক পরিচয়ের ঊর্ধ্বে ওঠে দ্রুত আইনে সর্বোচ্চ সাজার ব্যবস্থা করতে হবে।

[৭] সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, আল্লামা এম এ মান্নান, সৈয়দ মছিহুদৌল্লাহ, অধ্যক্ষ আল্লামা আহমদ হোসাইন আল কাদেরী, শাহ খলিলুর রহমান নিজামীসহ সংগঠনটির অন্যান্য নেতাকর্মীরা।সম্পাদনা:অনন্যা আফরিন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত