প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ‘সাংবাদিক রতনের কিছু হলে দায় পুলিশকে নিতে হবে’

আফরোজা সরকার: [২] বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেল সময় টেলিভিশনের রংপুর ব্যুরো প্রধান ও বিশেষ প্রতিবেদক মুমিনুর রহমান ওরফে রতন সরকারের কোনো ক্ষতি হলে তার দায়ভার পুলিশ প্রশাসনকে বহন করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন রংপুর সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র মাহমুদুর রহমান টিটু। তিনি বলেছেন, ‘সুনির্দিষ্ট তথ্য-প্রমাণসহ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করার পরও সাংবাদিক রতন সরকারকে গ্রেফতার না করার বিষয়টি রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ব্যর্থতা। যা সমাজের প্রত্যেকটি মানুষকেও উদ্বিগ্ন করেছে।

[৩] তারাও শংকিত পুলিশের কাছে ন্যায় বিচার পাওয়া নিয়ে। রতন সরকার শত্রু পক্ষের দ্বারা ক্ষতির সম্মুখিন হলে তার সম্পূর্ণ দায় দেনা পুলিশ প্রশাসনকেই বহন করতে হবে। রংপুর সিটি মেয়র ও সিটি পরিষদ তার ক্ষতির কোন দায়দায়িত্ব বহন করবে না।’গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর সিটি করপোরেশনের সভা কক্ষে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে একথা বলেন প্যানেল মেয়র মাহমুদুর রহমান টিটু। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়েরের ৬০ ঘণ্টা অতিবাহিত হলেও সাংবাদিক রতন সরকারকে গ্রেফতার না করায় এ সংবাদ সম্মেলন করেন সিটি পরিষদ।

[৪] লিখিত বক্তব্যে টিটু বলেন, ‘রংপুরে বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেল বাংলাভিশনের সিনিয়র প্রতিবেদক আনজারুল ইসলাম ওরফে জুয়েল আহমেদ এবং সময় সংবাদের সিনিয়র প্রতিবেদক মমিনুর রহমান ওরফে রতন সরকারের মধ্যে গত ২২ এপ্রিল সংঘটিত অপ্রীতিকর ঘটনাটিকে রতন সরকার ভিন্নখাতে প্রবাহিত করে রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র এবং রংপুর সিটি করপোরেশন পরিষদের ওপর চাপিয়ে দেন। সাংবাদিক রতন সরকার ওই দিন সিটি করপোরেশনকে জড়িয়ে মিথ্যাচার করেন।

[৫] তিনি আরও বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক যােগাযােগ মাধ্যম এবং তার মিডিয়ায় প্রতিনিয়তই মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট এবং মনগড়া বক্তব্য দিয়ে রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র, সিটি পরিষদ এবং সিটি করপোরেশনের মানহানি করে আসছেন। সে কারণে সিটি পরিষদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক সুনির্দিষ্ট তথ্যপ্রমাণ উপস্থাপন করে গত ২৪ এপ্রিল রংপুর মেট্রোপলিটন কোতয়ালী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন- ২০১৮ এর ২৫(২)/২৯(১)/৩১(১)/৩১(২) ধারায় মামলা করা হয়।

[৬] প্যানেল মেয়র আরো বলেন, ‘মামলার ৬০ ঘন্টা অতিবাহিত হলেও সাংবাদিক রতন সরকারকে এখন পুলিশ গ্রেফতার না করায় আমরা উদ্বিগ্ন ও শংকিত। সিটি পরিষদের ৩৩ জন সাধারণ এবং ১১ জন মহিলা কাউন্সিলর যৌথভাবে কোতয়ালী থানায় স্বশরীরে গিয়ে পুলিশের কাছে সাংবাদিক রতন সরকারকে গ্রেফতারের দাবি জানালে কোতয়ালী থানার ওসি তাকে গ্রেফতারের আশ্বাস দিয়েও অজ্ঞাত কারণে গ্রেফতার করেননি।

[৭] ইতিমধ্যেই রতন সরকার তার ফেসবুক আইডিতে সরকারি, বেসরকারি ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান এবং সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ধরনের মিথ্যা, বানােয়াট, উষ্কানিমূলক স্ট্যাটাস দিয়ে অলিতে গলিতে শত্রুতা তৈরি করে রেখেছেন। তাকে গ্রেফতার না করায় যদি রতন সরকার তার শত্রু পক্ষের দ্বারা ক্ষতির সম্মুখিন হন, তার সম্পূর্ণ দায় পুলিশ প্রশাসনকেই বহন করতে হবে। রংপুর সিটি মেয়র ও কাউন্সিলর পরিষদ কোন দায়দায়িত্ব বহন করবে না।’

[৮] সংবাদ সম্মেলন থেকে সাংবাদিক রতন সরকারকে গ্রেফতারে মেট্রোপলিন পুলিশ কমিশনারকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেন।অন্যথায় লাগাতর কঠোর আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবেন বলে হুশিয়ারি দেন সিটি পরিষদ। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন- সিটি করপোরেশনের ২০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল ইসলাম, ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাহাবুবুর রহমান মঞ্জু, ২৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মীর মো. জামাল উদ্দিন, ২৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রহমতুল্লা বাবলা, ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হারাধন রায় প্রমুখ। সম্পাদনা: সাদেক আলী

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত